বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১

আত্নহত্যার করার কারন, প্রতিকার

0
Showing 1 of 1

আত্নহত্যার করার কারন, প্রতিকার ও সচেতনতা বৃদ্ধি মূলক ডিজিটাল কন্টেন্ট নিয়ে কাজ করল ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির তিন তরুন শিক্ষার্থীঃ

 

আয়েশা সিদ্দিকাঃ  

বিশ্বব্যাপী আত্নহত্যা একটি ক্রমবর্ধমান সমস্যা । আত্মহত্যা প্রতিরোধ এখনো বিশ্বের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ।ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর সুইসাইড প্রিভেনশন (আইএএসপি) সংস্থাটির এক গবেষনায় দেখা যায়, পৃথিবীতে প্রতিবছর আট লাখ মানুষ আত্মহত্যা করেন। তার মানে প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন আত্মহত্যা করে থাকেন।ধারনা করা হয়েছে২০২০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ১৫ লাখ।
ঐ গবেষনায় আরো বলা হয়েছে, ১৫-২৯ বছরের মৃত্যুর মধ্যে আত্মহত্যাজনিত মৃত্যু হচ্ছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কারণ।পৃথিবীর সব মৃত্যুর ১দশমিক ৪ শতাংশ হচ্ছে আত্মহত্যাজনিত।এছাড়া যতজন আত্মহত্যা করেন, তার প্রায় ২৫ গুণ বেশি মানুষ আত্মহত্যার চেষ্টা করেন এবং তার চেয়ে অনেক বেশি সংখ্যক মানুষ আত্মহত্যা করার কথা চিন্তা করেন।
বাংলাদেশেও দিন দিন আত্নহত্যার প্রবনতা ক্রমান্ময়ে বেড়েই চলছে ,শুধু ২০১৮ সালেই আত্নহত্যার পথ বেছে নিয়েছিল ২৩ জন পাব্লিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।এছাড়াও বহুবীদ কারনে প্রতিনিয়ত আত্নহত্যার খবর পাওয়া যায় দেশের আনাচে কানাচে। গবেষনায় দেখা যায়,এদের বৃহত্তর একটা অংশ আত্নহননের পথ বেছে নেন মানসিক বিষণ্ণতা থেকে।
এসব বিষয় বিবেচনায় রেখেই তিন জন তরুন শিক্ষার্থী “আবু সাইদ হীমু, আব্দুল কাইয়ুম ও তানজিলা শেখ” তাদের BSc. in CSE এর শেষ বর্ষের প্রজেক্ট হিসেবে, জনাবা আয়েশা সিদ্দিকা (Senior Lecturer, CSE, WUB) এর তত্তাবধয়নে এমন একটি প্রজেক্ট নিয়ে কাজ শুরু করেন, যার মাধ্যমে যেসব মানুষ আত্নহত্যার চেষ্টা বা চিন্তা করতেছেন, তাদেরকে এই চিন্তা থেকে মুক্ত করার এবং বিভিন্ন বিষয় বিশ্লেষণ করে তাদেরকে কে সাজেষ্ট করার পলিসি মূলক একটি অ্যান্ড্রোয়েড অ্যাপস তৈরি করেছেন, যেটির নাম দিয়েছেন “Staying Alive” ।
এই অ্যাপসে প্রশ্ন উত্তরের মাধ্যমে ভিক্টিমদের থেকে তথ্য সংগ্রহ করে করে এবং সংগৃহীত তথ্য বিশ্লেষণ করে তা্দেরকে কাউন্সিলিং করা ছাড়াও তাদের উদ্দেশ্য ছিল আত্মহত্যা প্রতিরোধ ও আত্মহত্যা নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করা । এজন্য অ্যাপসে আছে আত্মহত্যা সচেতন মূলক নানান তথ্য যেমন আত্মহত্যা করার কারন, লক্ষন ও প্রতিরোধের বিভিন্ন উপায় ।
তাছাড়া এই অ্যাপসের মাধ্যমে কেউ চাইলে জরুরী ভিত্তিতে ন্যাশনাল হেল্প লাইন থেকেও সাহায্য পেতে পারেন ।

 

 

Showing 1 of 1
Share.

Leave A Reply