শুক্রবার, এপ্রিল ২৬

আড়াই বছর ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে ২৪ বাংলাদেশি

0
ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় ভারতে পাচার হওয়া ২৪ জন বাংলাদেশি যুবক দীর্ঘ আড়াই বছর ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছেন।
শুক্রবার সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরে এসেছেন তারা। বেলা ১১টার দিকে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদেরকে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন প্রক্রিয়ায় বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেছে।
ইমিগ্রেশন পুলিশ আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করেছেন। পরবর্তীকালে বেনাপোল পোর্ট থানা কাগজপত্র যাচাই শেষে তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছে দিতে রাইটস যশোর নামে একটি এনজিও সংস্থার হাতে তুলে দিয়েছে বলে পুলিশ জানায়।
ফেরত আসা যুবকরা হলেন- খুলনা জেলার জাফর চৌধুরীর ছেলে জুয়েল চৌধুরী (২৩), মাজেদুল ইসলামের ছেলে সফিকুল ইসলাম (৩৩), বরকত শেখের ছেলে তরিকুল ইসলাম (২৩), আমিন সরদারের ছেলে লিটন মোহাম্মাদ (২৮), শাহাদতের ছেলে রফিকুল ইসলাম (২৬), আব্দুল ছাত্তার খানের ছেলে বাবু খান (২৭), রফিকুল ইসলামের ছেলে রিফাত খান (২২), রেজাউল ইসলামের ছেলে সাগর হোসেন (২৪), আখতার খানের ছেলে রাকিব খান (২৪), রেজাউল শেখের ছেলে হাসান শেখ (২২), জাহাঙ্গীর হাওলাদারের ছেলে রনি হাওলাদার (২৩), যশোর জেলার আমজাদ হোসেনের ছেলে সাজ্জাদ মোল্যা (২৬), আব্দুল হোসেনের ছেলে জামাল মোল্যা (২৪), জহুর আলী সরদারের ছেলে নজরুল ইসলাম (২৩), গফফার গাজির ছেলে ইমাম হোসেন (২২), আবুল হোসেনের ছেলের আল- আমিন (২৩), হাবিবুর রহমানের ছেলে সাদ্দাম বেপারী (২৮), আব্দুল খায়েরের ছেলে আলামিন (২৫), মহাসিন শেখের ছেলে রাজিব শেখ (২০), আবুল খালেকের ছেলে সাব্বির হোসেন (২২), আলমগীর মোলার ছেলে আশরাফ হোসেন (২৫), বাগেরহাট জেলার মহিমুদ এর ছেলে নুর ইসলাম (৪৬), আছাদের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৪৬) ও  সাতক্ষীরা জেলার সবেদ আলীর ছেলে আব্দুল গনি (৩৮)।
বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাশার জানান, সংসারে অভাব-অনটনের কারণে আড়াই বছর আগে এ সব বাংলাদেশি কিশোর-যুবকরা ভাল কাজের আশায় দালালের খপ্পরে পড়ে বিভিন্ন সীমান্তে অবৈধ পথে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের বেঙ্গালুর শহরে যায়। সেখানে রাজমিস্ত্রী, রং মিস্ত্রির কাজ করার সময় সে দেশের পুলিশের কাছে ধরা পড়ে। আদালতের মাধ্যমে বছর অন্ধ্রপ্রদেশের ভিজলুর কর্নেটো জেলখানায় থাকে। সেখান থেকে তালাশ অ্যাসোসিয়েশন নামে ভারতের একটি এনজিও সংস্থা তাদের জেল থেকে ছাড়িয়ে নিজেদের শেল্টার হোমে রাখে। পরবর্তীকালে দু’দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন আইনে তাদের দেশে ফেরার ব্যবস্থা করা হয়। শুক্রবার সকালে ভারতীয় পুলিশ তাদের বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। এদের সবাইকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
এনজিও সংস্থা রাইটস যশোরের এরিয়া কোয়ার্ডিনেটর তৌফিকুজ্জামান বলেন, ফেরত আসাদের ইমিগ্রেশন ও বেনাপোল পোর্ট থানার আনুষ্ঠানিকতা শেষে যশোর তাদের অফিসে নেওয়া হবে। এরপর তাদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। ফেরত আসা বাংলাদেশিরা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে মামলা করতে চায় তবে তাদের আইনি সহয়তা দেওয়া হবে বলেও জানান এই এনজিও কর্মকর্তা।
Share.

About Author

Leave A Reply