সোমবার, মে ২৭

দুধে ভাতে নয়, আমার মা বোন থাকুক নিরাপদে

0
পত্রিকার পাতা খুললেই মনটা খারাপ হয়ে যায়। এখানে, ওখানে হরদম পাশবিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছে আমার মা, বোন, বান্ধবী।
দুদিন এসব নিয়ে সবাই মাতামাতি করে, মানববন্ধন, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, লাঠি কিংবা মশাল মিছিল তারপর আবার চুপ, যে যার মতো। এটা যেন আমার নিত্যকার অভ্যাস হয়ে উঠছে।
লাভের লাভ কিছুই হয় না। আইনের ফাঁক ফোকর দিয়ে বেরিয়ে যায় অপরাধী। শুধু কেউ হারায় তনু, নুসরাত, হাসির মতো মা, বোন, কিংবা মেয়ে।
পুলিশ সদর দপ্তরের এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, সারাদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন দমনের মামলা হয়েছে এক হাজার ১৩৯টি এবং হত্যা মামলা হয়েছে ৩৫১টি।
বেসরকারি সংগঠন ‘মানুষের জন্য’ ফাউন্ডেশনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এপ্রিলের মাসের প্রথম ১৫ দিনে সারা দেশে ৪৭ জন শিশু পাশবিক নির্যাতন চেষ্টা ও যৌন হয়রানির শিকার হয়েছে। যাদের ৪৭ জনের মধ্যে পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয় ৩৯ জন।
সম্প্রতি, রংপুরে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে প্রধান শিক্ষক, ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে অধ্যক্ষ এবং ঝিনাইদহের মহেশপুরে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী (১২) চিকিৎসকের দ্বারা পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়।
এছাড়া মসজিদের ইমামও শিশুর উপর পাশবিক নির্যাতন চালিয়েছে এমন খবর গণমাধ্যমে পেয়েছি।
সবার কাছে আমার প্রশ্ন মসজিদ, স্কুল, কলেজে যখন আমার বোন নিরাপদ নয় তাহলে কোথায় নিরাপদ? উত্তর আছে কি?
টাঙ্গাইলে পার্কে ঘুরতে এসে পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক নারী। ঘটনাটি খুব দাগ কাটে মনে, মাঝে মাঝে মনে হয় এ কেমন দেশে জন্মেছি। যেখানে নারীর স্বাধীনতা চার দেওয়ালে বন্দি।
হে রাষ্ট্র আমি চাই না আমার মা, বোন দুধে ভাতে থাকুক। আমি শুধু চাই তারা নিরাপদে থাকুক।
Share.

About Author

Leave A Reply