ওসি মোয়াজ্জেমের গ্রেফতারি পরোয়ানা যশোরে

0
আলোচিত ফেনীর সোনাগাজী মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফী হত্যার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অভিযুক্ত সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের গ্রেফতারি পরোয়ানা যশোরে পৌঁছেছে। যশোরে তার বাড়ি হওয়ায় সেখানে ওয়ারেন্টটি পাঠানো হয়েছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আনসার উদ্দিন জানান, সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের বাড়ি ও তার স্বজনদের নজরদারিতে রাখা হয়েছে।
যশোর শহরের চাঁচড়া ডালমিল রায়পাড়ায় মোয়াজ্জেমদের বাড়িটিতে এখন তার দুইভাই ও এক বোন মায়ের সঙ্গে বসবাস করেন।
ঈদের আগে এই স্বজনদের সাথে কথা বলেন মোয়াজ্জেম। এখন ওয়ারেন্ট আসায় বাড়িটি ও তার স্বজনদের নজরদারিতে রাখা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত মার্চে নুসরাত তার মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করতে গেলে সোনাগাজী থানার ওসি ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন ওই মাদ্রাসাছাত্রীর জবানবন্দি নিয়েছিলেন।
সেসময় বিতর্কিত প্রশ্ন ও নুসরাতের অমতে ভিডিও ধারণ করেছিলেন। পরে সে ভিডিও নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন ওসি।
মূহুর্তেই সারাদেশে তা ভাইরাল হয়ে যায়। সমালোচনার মুখে পড়েন সেই ওসি।
এর কয়েক দিনের মাথায় ৬ এপ্রিল অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার নির্দেশে কতিপয় বোরকা পরিহিতা নুসরাতের গায়ে অগ্নিসংযোগ করে। ১০ এপ্রিল চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নুসরাত মারা যায়।
নুসরাতের মৃত্যুর পর গত ১৫ এপ্রিল ওই ভিডিও ছড়ানোর জন্য ওসি মোয়াজ্জেমকে আসামি করে ঢাকায় বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।
ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন ওই অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)।
এর ধারাবাহিকতায় পিবিআই যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়, সেখানে ওসি মোয়াজ্জেমের নিজের মোবাইল ফোনে জবানবন্দি রেকর্ড করার এবং তা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগের সত্যতা পায় বলে জানায়।
পিবিআইয়ের দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদন আমলে নিয়ে গত ২৭ মে বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।
পরোয়ানা জারির দুদিনের মাথায় আদালতে হাজির না হয়ে অজ্ঞাত স্থান থেকে জামিনের আবেদন করেন সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম।
এদিকে, ওসি মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতারের ব্যাপারে স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আশ্বাস দিলেও, এখনো ধরাছোয়ার বাইরে সেই ওসি।
Share.

About Author

Leave A Reply