কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠ করতে জেলা প্রশাসনের ব্যাপক প্রস্তুতি।

3

অন নিউজ রিপোর্টার।।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠ করতে প্রস্তুতি সভা করেছে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন।

বুধবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে প্রস্তুুতি সভায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, জেলা পুলিশ, ট্রাফিক বিভাগ, বাস মালিক সমিতি ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক শ্রেণীর ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৮ ও ৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সহ ১৯টি কেন্দ্রে পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষায় এবছর অংশগ্রহণ করবে ৬৮ হাজার ৭৭ জন পরীক্ষার্থী। শিক্ষার্থীদের সাথে তাদের অভিভাবকসহ প্রায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের লক্ষাধীক লোকের সমাগম হবে পরিক্ষার দিন।

বিগত বছরগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পর্যাপ্ত প্রস্তুতি না থাকায় বিপুল পরিমান পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে দেখা গেছে। এছাড়া ওইসব এলাকাগুলোতে ঘটেছে ছিনতাইয়ের মতো ঘটনাও।

অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরিক্ষাকে কেন্দ্র করে এক শ্রেনীর মানুষ খাবার দাম বেশি নেয়ারও অভিযোগ ছিল শিক্ষার্থীদের মুখে।

এবছর বিষয়গুলো গুরুত্বসহকারে দেখে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশ বিভাগ নির্ভিগ্নে ভর্তি পরিক্ষা সম্পন্ন করার জন্য প্রস্তুুতি গ্রহন করেছে। প্রস্তুতি সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা যাতে শান্তিপূর্ণভাবে পরিক্ষা দিতে পারে সেজন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হবে।

শিক্ষার্থীদের বহন করা গাড়ি ছাড়া নিয়ন্ত্রন করা হবে সকল যানবাহন, যানজট রোধ সকল গাড়ি পাকিংয়ের জন্য কুমিল্লা ঈদগা, স্টেশন ক্লাব, শিল্পকলা একাডেমীতে ব্যবস্থা রাখা হবে।

কুমিল্লা শহরে প্রবেশের প্রতিটি সড়কে রোভার স্কাউট, বিএনসিসির সদস্যরা অবস্থান নিবে সেখানে পরিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট কেন্দ্রের অবস্থান জানিয়ে নির্ধারিত ভাড়ায় যানবাহন ঠিক করে দেবে। পরিক্ষার দিন যাতে খাবারের দাম অতিরিক্ত নিতে না পারে হোটেল মালিকের সাথে কথা বলে খাবারের দাম নির্ধারিত করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থান গুলোতে থাকবে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা। থাকবে একাধীক মেডিক্যাল টিম।

ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৮ ও ৯ নভেম্বর দুই দিন নগরী সম্পূর্ণ হকার ও ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ী মুক্ত রাখা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারি শিক্ষার্থীদের সুবিদার্থে জেলা প্রশাসনের নেয়া সিদ্ধান্তগুলো জানিয়ে নগরী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে সাটানো হবে বোর্ড। কেন্দ্রগুলোর পাশেই নির্ধারিত মূল্যে খাবার ও পানির ব্যাবস্থা রাখা হবে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

প্রস্তুুতি সভায় কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার, সৈয়দ নুরুল ইসলাম, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মোঃ আবু তাহের, কুমিল্লা দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্লাহ খোকন, বাস মালিক সমিতির মহাসচিসব তাজুল ইসলাম ও রেস্তোরা মালিক সমিতির নেতা নাসিরুল ইসলাম মজুমদার। সভায় সাংবাদিক ও বিভিন্ন পেশাজীবী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

আরো পড়ুন