বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২১ .
  • ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা ও প্রশংসা; দ্বিতীয় দিনেও বিশুদ্ধ পানি বিতরণ করলো সিসিএন বিশ্ববিদ্যালয়

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

এমদাদুল হক সোহাগ:

দ্বিতীয় দিনের মতো দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) অনার্স প্রথম বর্ষের ভর্তিযুদ্ধে অংশ নিতে আসা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে বিশুদ্ধ খাবার পানি দিয়ে আপ্যায়ন করেছেন কুমিল্লা কোটবাড়ীতে অবস্থিত সিসিএন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

শুক্রবারও তারা ৩০ হাজার বিশুদ্ধ খাবার পানি বিতরণ করে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়টির ওই উদ্যোগের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক সহ কুমিল্লার সর্ব মহলে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। কুমিল্লা সহ দেশের বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট মিডিয়াতেও ব্যাপক প্রচার হয়েছে সংবাদটি। কেউ কেউ সিসিএন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে ফেইসবুকে নিজেদের আইডিতে পোস্ট করেছেন। তুলে ধরেছেন কুমিল্লার মানুষের আতিথেয়তার কথা।

শুক্রবার মুহুর্তের মধ্যেই ছড়িয়ে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশংসনীয় উদ্যোগটি। কুমিল্লার সিনিয়র ফটো সাংবাদিক বাহার রায়হান তাঁর ফেইসবুক পেইজে ছবি ও সংবাদটি শেয়ার করার পর সেলিম খন্দকার নামের একজন ঠিকাদার ও রাজনীতিবিদ গ্রেট জব বলে মন্তব্য করেন। সাজ্জাদুল কবির নামের আরেকজন এই ছবি ও সংবাদ শেয়ার করার জন্য বাহার রায়হানকে ধন্যবাদ জানান। সোহাগ মাহফুজ নামের একজন আওয়ামীলীগ নেতা বিষয়টি শেয়ার করার পর, সৌদি প্রবাসী মো: আলাউদ্দিন মুন্সী কমেন্টেস এ বলেন, সৌদি আরবে এমন কাজ হয়। এখন বাংলাদেশেও হচ্ছে। অনেক খুশি হলাম দেখে। সদকায়ে জারিয়ার ও উত্তম ইবাদত হলো কাউকে পানি ও আহার খাওয়ানো

আরেক সাংবাদিকের ফেইসবুক পোস্টের নিচে ঝুমুর আক্তার শিমু লিখেছেন, ওই আর প্রাউড অব সিসিএন ইউনিভার্সিটি। আদনান সোহেল চৌধুরী লিখেছেন, আলহামদুলিল্লাহ সিসিএনের সৌজন্যে সারাদিনে চার বোতল মিনারেল পানি ও হামদর্দ এর সৌজন্যে ৬-৭ গ্লাস রুহ আফজা পান করলাম। কুমিল্লা জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য এডভোকেট ফয়সল সুলতান বলেছেন, সত্যিই প্রশংসনীয় উদ্যোগ, ধন্যবাদ সিসিএন কর্তৃপক্ষকে। আবু সাঈদ চৌধুরী নামের একজন প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেইসবুকে বলেছেন, ধন্যবাদ তবুওতো শুরু হলো। রুহুল আমিন লিখেছেন, আলহামদুলিল্লাহ, শুরুটা ছোট হউক সমস্যা নাই, একদিন আরো বড় পরসিরে আয়োজন হবে। সবার জন্য শুভকামনা। রাজধানী ঢাকার উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক মো: মনির হোসেন বলেছেন, গ্রেট জব। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেকশন অফিসার মোহাম্মদ মোশারফ বলেছেন, সাথে একটা করে বিস্কুটের প্যাকেট দিলে কুমিল্লাবাসীর মানবিকতা আরো ফুটে উঠতো ভালো। মো: সোহেল রানা বলেছেন, বর্ষসেরা মানবিকতার পরিচয় দিয়েছে আমাদের সিসিএন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

শনিবার সকাল নয়টা থেকে সিসিএন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি বাস ও গাড়িতে করে বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে ঘুরে পানি বিতরণের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবকরা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে তৃষ্ণার্তদের মাঝে পানি বিতরণ করেন। কোটবাড়ী এলাকায় পানির বোতলের কেস হাতে নিয়ে বিভিন্ন সড়কের মোড়ে অবস্থান নেয় স্বেচ্ছাসেবকরা। সকাল সাড়ে দশটায় ঐতিহ্যবাহী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের ডিগ্রি শাখার সামনের সড়কে সিসিএনের গাড়ি থেকে পানি বিতরণের সময় মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে বোতল সংগ্রহ করার জন্য। তাছাড়া, ড্রেনের উপর, দোকানের সামনে, বাসা বাড়ির সিড়িতে বসে অপেক্ষারত অভিভাবকদের মাঝে লাল টি শার্ট ও ক্যাপ পড়া স্বেচ্ছাসেবকরা পানির বোতল বিতরণ করেন।  


সিসিএন শিক্ষা পরিবারের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান কার্যনির্বাহী এবং সিসিএন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার মো: তারিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, মানবিক বিষয় চিন্তা করে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কুমিল্লায় আসা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য ৪৫ হাজার বিশুদ্ধ খাবার পানির বোতল মজুদ করা হয়। ছয়টি গাড়ির মাধ্যমে এবং আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬২জন স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে বিভিন্ন কেন্দ্রে পানি সরবরাহ করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ভবিষ্যতে আরো ভালো কিছু করার প্রেরণা পেয়েছি। বিশুদ্ধ পানির সুবিধা গ্রহণকারী ও কুমিল্লার আপামর জনগনকে ধন্যবাদ আমাদের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি অনুপ্রেরণা দেয়ার জন্য। আমরা সিসিএন পরিবার চেষ্টা করবো ভবিষ্যতে আরো ভালো কিছু করা যায় কিনা।        

Share.

Leave A Reply