প্যাকেটের গায়ে লেখা দামে লবণ কিনুন

5

অতিরিক্ত দাম না দিয়ে, লবণের প্যাকেটের গায়ে এমআরপি রেট দেখে কেনার পরামর্শ দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি পরিতোষ ক্রান্তি সাহা। দেশে লবণের কোনো সংকট নাই বলেও মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) জানান তিনি। পরিতোষ ক্রান্তি সাহা বলেন, দেশে লবণের কোনো ঘাটতি নেই। যথেষ্ট পরিমাণ লবণ মজুদ আছে। অতিরিক্ত দাম না দিয়ে, লবণের প্যাকেটের গায়ে এমআরপি রেট দেখে কিনুন।

এদিকে, দেশে বর্তমানে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুদ রয়েছে বলে জানিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণ চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুদ রয়েছে। মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারা দেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণ মজুদ রয়েছে।

পাশাপাশি চলতি নভেম্বর মাস থেকে লবণের উৎপাদন মওসুম শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় উৎপাদিত নতুন লবণও বাজারে আসতে শুরু করেছে। মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, দেশে প্রতি মাসে ভোজ্য লবণের চাহিদা কম-বেশি ১ লাখ মেট্রিক টন। অন্যদিকে লবণের মজুদ আছে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন। সে হিসাবে লবণের কোনো ধরণের ঘাটতি বা সংকট হবার প্রশ্নই ওঠে না।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গু’জব রটনা করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের দাম অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এ ধরণের গু’জবে বিভ্রান্ত না হতে সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়।

আরো পড়ুন