আবারও রেকর্ড সংক্রমণ দেখল ভারত, মৃত্যু ১৮ হাজার

76

অনলাইন ডেস্ক।। সময়ের সাথে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে ভারতের প্রায় সব অঞ্চলে। নিয়ন্ত্রণে তো আনাই যাচ্ছে না, উল্টো প্রতিদিনই ঘটছে রেকর্ড সংক্রণ। গত একদিনেও এর ব্যত্যয় ঘটেনি। ভাইরাসটিতে ভুক্তভোগীর সংখ্যা সোয়া ৬ লাখ ছাড়িয়েছে। সুস্থতার হার বাড়লেও প্রাণহানি ১৮ হাজার ছাড়িয়েছে।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২০ হাজার ৯০৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ২৫ হাজার ৫৪৪ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে ৬০ শতাংশের বেশি তিন রাজ্যের (মহারাষ্ট্র, দিল্লি ও তামিলনাড়ু)।

একইসময়ে প্রাণহানি ঘটেছে ৩৭৯ জনের। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ১৮ হাজার ২১৩ জনের মৃত্যু হলো করোনায়। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৯২ লাখের বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

এর মধ্যে শুধু জুনেই করোনার শিকার ৪ লাখ ও প্রাণহানি ঘটেছে ১২ হাজার মানুষের। যা মোট সংক্রমণ ও প্রাণহানির প্রায় ৭০ শতাংশ।

ভারতে প্রাণহানির শীর্ষে বরাবরই মহারাষ্ট্র। যেখানে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৬২৬ জন। এরপরই তামিলনাড়ু। এখন পর্যন্ত ৯৮ হাজার ৩৯২ জন করোনার শিকার হয়েছেন এ রাজ্যে। আর রাজধানী দিল্লিতে আক্রান্ত ৯২ হাজার ১৭৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

এছাড়া প্রতিনিয়ত বাড়ছে সংক্রমণ ৯টি প্রদেশে। এর মধ্যে সবচেয়ে নাজুক অবস্থা গুজরাট, বিহার, উত্তর প্রদেশ, অন্ধ্র প্রদেশ, কর্নাটক, কেরালা ও হরিয়ানায়।

সংক্রমণ ঠেকাতে ভারতে প্রথমদিকে সামাজিক দূরত্বের উপর জোর দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন লকডাউনের কড়াকড়ি নেই। অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু হওয়ায় বাজার-হাট, গণপরিবহনে বেড়েছে লোকের ভিড়। বেড়েছে একে অপরের সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনাও। তাই, প্রতিদিনই আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা।

তবে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন বাড়লেও, হয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যাও স্বস্তি দিচ্ছে ভারতবাসীকে। এমনিতেই করোনা অ্যাক্টিভ রোগীর থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা এক লাখেরও বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় ২০ হাজার ৩২ জন সুস্থ হয়েছেন। যা একদিনে সর্বাদিক সুস্থতার সংখ্যা। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৮৯২ জন ভুক্তভোগী।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!