ইউরোপে করোনায় মৃত্যু আড়াই লাখ ছাড়াল

অনলাইন ডেস্ক।।

69

লাতিন আমেরিকার পর দ্বিতীয় অঞ্চল হিসেবে মহামারি করোনায় আড়াই লাখ মৃত্যু ছাড়িয়েছে ইউরোপে। অঞ্চলটিতে দ্বিতীয় দফায় করোনার সংক্রমণও বাড়ছে। বিগত দুই সপ্তাহে ইউরোপের অনেক দেশেই রেকর্ড কোভি-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগজনক বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়ে বলা হচ্ছে, গত বৃহস্পতিবার ইউরোপে প্রথমবারের মতো একদিনে দুই লাখের বেশি সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এ ছাড়া চলতি সপ্তাহে দৈনিক সর্বোচ্চ করোনা সংক্রমণের রেকর্ড হয়েছে ইউরোপের দক্ষিণাঞ্চলীয় বেশিরভাগ দেশে। ফলে নতুন করে বিধিনিষেধও আরোপ হচ্ছে।

বিশ্বে মহামারি করোনায় মোট মৃত্যুর ১৯ শতাংশ এবং মোট শনাক্ত সংক্রমণের ২২ শতাংশই ইউরোপে। অঞ্চল এ পর্যন্ত শনাক্ত ৮০ লাখের বেশি কোভিড-১৯ রোগীর মধ্যে যে আড়াই লাখ মারা গেছে এর মধ্যে দুই তৃতীয়াংশই কয়েকটি দেশে। দেশগুলো হলো যুক্তরাজ্য, ইতালি, ফ্রান্স, রাশিয়া, বেলজিয়াম এবং স্পেন।

করোনায় প্রায় ৪৫ হাজার মৃত্যু নিয়ে শীর্ষে আছে যুক্তরাজ্য। এ তালিকায় রয়েছে যথাক্রমে ইতালি, স্পেন, ফ্রান্স ও রাশিয়া। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বৃহস্পতিবার বলেছেন, ভ্যাকসিনের ওপর নির্ভর করতে পারে না ব্রিটেন আর তাই মহামারির বিস্তার ঠেকাতে কিংবা লাগাম টানতে আমাদের বিধিনিষেধসহ ব্যবস্থা নিতে হবে।

গত এক সপ্তাহের দৈনিক গড় মৃত্যুর হিসাবে দেখা যাচ্ছে, রাশিয়ায় গড়ে প্রতিদিন আড়াইশো মানুষ মারা যাচ্ছে করোনায়; ইউরোপে যা এখন সর্বোচ্চ। দৈনিক গড়ে ১৪৩ মৃত্যু নিয়ে এর পর রয়েছে যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স।

শুক্রবার সপ্তম দেশ হিসেবে দশ লাখ করোনার সংক্রমণ ছাড়িয়েছে ফ্রান্সে। দ্বিতীয় দফায় করোনার প্রাদুর্ভাবে সবচেয়ে বিপর্যস্ত হলো ফ্রান্স। নতুন করে দেশটিতে সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছেই। আর সংক্রমণ ঠেকাতে রাজধানী প্যারিসসহ দেশজুড়ে আবারও রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেছে দেশটির সরকার।

ফ্রান্সে দৈনিক গড় মৃত্যু টানা দশদিন ধরে বাড়ছেই। এদিকে সম্প্রতি দশ লাখ সংক্রমণ ছাড়িয়েছে স্পেনে। বিগত এক সপ্তাহে দেশটিতে দৈনিক গড়মৃত্যু ১৩৬। দেশটিতে প্রতি দশ হাজারে মৃত্যুরহার ৭ দশমিক ৩৮; যা ইউরোপে সর্বোচ্চ এবং লাতিন আমেরিকার দেশে পেরুর পর বিশ্বে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!