এমন সিদ্ধান্তে হতাশ প্যাট কামিন্স

49

অনলাইন ডেস্ক।। টেস্ট ক্রিকেট তখনই জমে উঠে যখন ম্যাচে ব্যাটসম্যান এবং বোলারদের লড়াইটা হয় সমানে সমান। টেস্ট যদি হয় ম্যাড়ম্যাড়ে ব্যাটিং উইকেটে তবে ম্যাচের উত্তাপ কমে যায় বহুগুণ।

বল ঘষে, সামান্য থুথু বা লালা লাগিয়ে বোলাররা উইকেট থেকে সামান্য সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করবেন, ব্যাটসম্যানরা কখনো সেই চেষ্টা ধূলিসাৎ করে দেবেন আবার কখনো তাদের উইকেট মুখ থুবড়ে পড়বে, এটাই সাদা পোশাকের ক্রিকেটের সৌন্দর্য।

তবে বর্তমান সময়ে পৃথিবীকে থমকে দেয়া করোনাভাইরাসের কারণে বদলে যেতে পারে ক্রিকেটের চিরচেনা কিছু নিয়ম। সেক্ষেত্রে সুবিধা হবে কাদের? প্রশ্ন যদি এমন হয় তবে চোখ বন্ধ করে উত্তর যাবে ব্যাটসম্যানদের পক্ষে।

করোনা সংক্রমণ রোধে বন্ধ হতে যাচ্ছে বলে থুথু এবং লালার ব্যবহার। এতদিন এই ইস্যু নিয়ে বেশ আলোচনা চলছিল, সম্প্রতি থুথু, লালা এবং ঘাম ব্যাবহার করে বলের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর উপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান ইন্সটিটিউট অব স্পোর্টস (এআইএস)। অজি ক্রিকেটাররা আবার অনুশীলনে ফিরলেই কার্যকর হবে নতুন নিয়ম।

এমন সিদ্ধান্তে বেশ হতাশ অজি পেসার প্যাট কামিন্স। সুইং তার কাছে একটি শিল্প আর সুইং ছাড়া ক্রিকেট শুধুই ব্যাটসম্যানদের খেলা বনে যাবে বলে বিশ্বাস কামিন্সের।

‘বল যদি উজ্জ্বল করতে না পারা যায় তবে সুইং থাকবে না, থাকবে না রিভার্স সুইং। ব্যাটসম্যানদের রান করতে না পারার আর কোনো কারণ থাকছে কী!’

কামিন্স মনে করেন শৈল্পিক ব্যাপার আছে বলেই সবার ক্রিকেটের এই ফরম্যাট পছন্দ। এছাড়া বল উজ্জ্বল করাকে বোলারের অধিকার মনে করেন কামিন্স।

‘টেস্ট ক্রিকেট সবাই পছন্দ করে কারণ এর অনেক শৈল্পিক দিক আছে। এখানে সুইং বোলার থাকে, স্পিন থাকে; আসলে টেস্ট ক্রিকেটকে শৈল্পিক করে তুলতে যা যা প্রয়োজন, এর সবই খেলাটিতে থাকে।’

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!