করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন জনপ্রিয় প্রযোজক মোহাম্মদ বরকত উল্লাহ

53

অনলাইন ডেস্ক।। বাংলাদেশ টেলিভিশনের খ্যাতিমান প্রযোজক, টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব মোহাম্মদ বরকতউল্লাহ আর নেই। (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর গ্রীন লাইফ হাসপাতালে আজ সোমবার সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। তিনি নন্দিত অভিনেত্রী বিজরী বরকতুল্লাহ’র বাবা। তার স্ত্রী নৃত্যশিল্পী জিনাত বরকত উল্লাহ। তিনিও করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।

বাংলাদেশ টেলিভিশনের এক সময়ের জনপ্রিয় প্রযোজক মোহাম্মদ বরকত উল্লাহ ও জিনাতের পরিবারে বিজরী ছাড়াও আরেক সন্তান কাজরী রয়েছেন। বিটিভির সাড়া জাগানো ধারাবাহিক ‘কোথাও কেউ নেই’, ‘ঢাকায় থাকি ও সকাল সন্ধ্যা’ নাটক তিনটি প্রযোজনা করেছিলেন মোহাম্মদ বরকত উল্লাহ।

তিনি দীর্ঘদিন বিটিভি ছাড়াও চ্যানেল ওয়ান, বাংলাভিশনের অনুষ্ঠান প্রধান হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, করোনা আক্রান্তের পর স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটলে মোহাম্মদ বরকত উল্লাহকে রোববার রাতে গ্রীনলাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে সে সময় ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে মেয়ে বিজরী লেখেন, ‘আমার বাবাকে আইসিইউতে নেয়া হয়েছে। তিনি ভেন্টিলেশন সাপোর্টে আছেন। উনার করোনা ধরা পড়েছে। সবার দোয়া চাই।’

এরপর সোমবার সকালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এই কিংবদন্তি প্রযোজকের মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুলাই রাতে অভিনেত্রী বিজরী বরকতুল্লাহ তার মা নৃত্যশিল্পী জিনাত বরকতুল্লাহর করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর জানান। তাকেও রাজধানীর গ্রিন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মাকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে বেশ চিন্তিত হয়ে পড়েন অভিনেত্রী বিজরী। ওই সময় তিনি জানান, মায়ের জন্য বি পজিটিভ প্লাজমা খুঁজেছেন তিনি। বেশ কয়েকবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচিতদের অনুরোধ করেছেন।

এ নিয়ে বিজরী আরো বলেন, ‘এতটা অসহায় আগে কখনো লাগেনি। কী করব ভেবে পাচ্ছি না। যত দ্রুত সম্ভব আমার মায়ের জন্য প্লাজমা প্রয়োজন। এই সময় কেউ সাহায্য করলে কৃতজ্ঞ থাকব।’

কিন্তু তার বাবার অবস্থা সম্পর্কে তখনও কিছু জানান নি তিনি। এরই মধ্যে বাবা হারালেন অভিনেত্রী। সূত্রঃ একুশে টিভি অনলাইন

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!