কুমিল্লায় জরাজীর্ণ ভবনে চলছে সরকারি অফিসের কার্যক্রম

মো: আবদুল আউয়াল সরকার, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি।।

137
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে জীবনের ঝুকি নিয়ে যাবতীয় কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে কর্মকর্তা কর্মচারীরা। ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলায়। অফিসগুলো হলো চান্দিনা উপজেলা মৎস্য, উপজেলা আনসার ভিডিপি ও কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন। প্রতিদন জীবনের ঝুকি নিয়ে আতংকের মাঝে কাজ করে যাচ্ছে ঐ ভবনে থাকা সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।
গত বুধবার (২২ জানুয়ারী) দুপুরে চান্দিনা উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তার অফিসে গিয়ে দেখা যায় এসব দৃশ্য।
বিষয়টি জানতে গিয়ে জানা যায়, ২০১৭ সালেও অফিস চলাকালীন সময়ে ছাদ ধসে পড়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাধেশ্যাম বৈষ্ণব নামের এক কর্মকর্তার সামনেই। এ সময় চেয়ার, টেবিল ও আসবাবপত্র নষ্ট হয়। কর্মকর্তারা ঐ সময় আতংকে অফিসে থেকে বেরিয়ে যান। গত ২২ জানুয়ারী রাতের কোন এক সময়ে আবারো ঝরে পড়ে ছাদের প্লাস্টার। দুপুর ২টায় সেই ছাদের বাকি অংশ আবারো ধসে পড়ে। এমন জরাজীর্ণ ও ঝুকিপূর্ণ জেনেও কাজ করে যাচ্ছে মৎস্য অফিস, আনসার ভিডিপি অফিস ও কৃষি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা।
এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফারুক ময়েদুজ্জামান জানান, এ ভবটি মূলত বিএডিসি’র ভবন। ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষনা করা হয়েছে। উপজেলায় স্থান সংকুলান না থাকায় এখানে অফিস করতে হচ্ছে। বিষয়টি মন্ত্রনালয় ও অধিদপ্তরকে জানানো হয়েছে। ভাড়া বাসার জন্য উর্দ্ধতন বরাবর চিঠি পাঠিয়েছি।
চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নেহাশীষ দাশ ভবনের জরাজীর্ণ বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এটি একটি পরিত্যাক্ত ভবন। ভবনটি জরাজীর্ণ অবস্থায় আছে। নতুন ভবন হলে আমাদের এ সংকটটি আর থাকবেনা। আপাতত আমরা তাদেরকে অন্য একটি ভবনে স্থানান্তর করবো।
আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!