কুমিল্লায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

198
কুমিল্লায় এক কিশোরীকে ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষিত ঐ কিশোরীকে ধর্ষনের পর তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তার হাত পা বেধে তার টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়েছে। ঘটনার সময় চার যুবক অংশ নিলেও ধর্ষনের ঘটনায় আনিস নামে এক যুবকের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। ধর্ষিতা কিশোরীর বাড়ী কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলার বাসিন্দা । বারপাড়া গ্রামে লিটন মিয়ার বাসায় ভাড়া থাকে।
গত ২৬ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায় কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার বারপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।  মামলার বাদী লিটন মিয়া জানান, আমার বোনকে বারপাড়ার আনিস সহ আরো তিন যুবক খালি জায়গা থেকে তুলে নিয়ে এক বিল্ডিংয়ে প্রবেশ করে এবং সেখানে হাত পা বেধে ধর্ষন করে। বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে আমাদেরকে প্রানে মারার হুমকি প্রদর্শন করে। আমার বোনের অবস্থা খারাপ দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ আমার বোনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাপাতালে ভর্তি করে। এখনো হাসপাতালে আমার বোন চিকিৎসাধীন রয়েছে।
প্রত্যেক্ষদর্শী আবুল কাশেম নামে এক যুবক জানান, আমি ঐ ভবনে ভাড়া থাকি। মেয়েটিকে জোরপূর্বক ৪টি ছেলে তুলে নিয়ে তাকে একটি রুমের ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে ফেলে। আধা ঘন্টা পরে তারা বের হয়ে আসে। পরে ঐ মেয়ের মুখ থেকে জানতে পারি আনিস নামে এক যুবক তাকে ধর্ষন করেছে।
উক্ত ঘটনায় কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারুল হক জানান, ঘটনার পর স্থানীয়দের ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে মেয়েটির চিকিৎসার ব্যবস্থা করি। ভিকটিমের বড় ভাই থানায় মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করছি।
আরো পড়ুনঃ