কুসিকের উন্নয়নে দেড় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

কুমিল্লা প্রতিনিধি।।

৭৬৭

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়নে ১ হাজার ৫ শ’ ৩৮ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে। মঙ্গলবার এনইসি সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেকের সভায় এ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষে কুমিল্লার ইতিহাসে সর্ববৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উচ্ছাস প্রকাশ করেছেন কুমিল্লা নগরবাসী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম ও স্থানীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের প্রতি নগরবাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ মনিরুল হক সাক্কু।

জানা যায়, কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মো.তাজুল ইসলাম স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর কুমিল্লায় একটি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে যোগ দিলে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মন্ত্রীকে জানান, দেড় শ’ কোটি টাকা হলে কুমিল্লা নগরীর প্রায় সকল উন্নয়ন কাজ করা সম্ভব হবে। সেসময় মন্ত্রী বলেছিলেন, ‘কুমিল্লা নগরীর পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য শুধু দেড়’শ কোটি নয়, আপনারা দেড় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প দেন। বাকিটা আমরা দেখবো।’ এলজিআরডি মন্ত্রীর এই আশ্বাসের প্রেক্ষিতে কুসিক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু একটি মেগা প্রকল্প করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে জমা দেন। অবশেষে কুমিল্লায় দেওয়া সেই কথা রেখেছেন এলজিআরডি মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। মন্ত্রীর উদ্যোগে অবশেষে বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে কুমিল্লার ইতিহাসের সর্ববৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প।
কুসিক সূত্র জানায়, এ প্রকল্পের মূল লক্ষ্য হচ্ছে নগরীরর জলাবদ্ধতা নিরসন, যানজট দূরীকরণ, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন ও সৌন্দয্যবর্ধন। এ প্রকল্পের মাধ্যমে ১৩ তলা বিশিষ্ট ও আধুনিক সেবা সম্বলিত নগর ভবন, ৬ তলা বিশিষ্ট দু’টি সেবক কলোনি ও কুসিকের আঞ্চলিক অফিসগুলোর উন্নয়ন করা হবে। পুরাতন গোমতী নদী এলাকাসহ নগরীর বিভিন্ন পুকুরের উন্নয়ন করে হাতিরঝিলের মত রূপদান করা হবে এবং দৃষ্টিনন্দন ব্রীজ, নদী শাসন, ড্রেন নির্মাণ, রাস্তাঘাটের আধুনিকায়ন ও আলোকসজ্জার মাধ্যমে এক ধাপ এগিয়ে যাবে কুমিল্লা নগরী। এছাড়াও নগরীর ১৪৬টি কবরস্থানের উন্নয়ন, ৩০৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, ২০৩ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ, ১৩ কিলোমিটার ফুটপাথ নির্মাণ, ৭টি আধুনিক পাবলিক টয়লেট, ১টি ট্রাক টার্মিনাল ও ১টি বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা হবে।

কুসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলামের দিকনির্দেশনা মোতাবেক কুসিকের মেয়র, প্রকৌশলী ও কর্মকর্তাগণ নগরীর উন্নয়নের জন্য গত ১ বছর ধরে বৃহৎ এ প্রকল্পটি নিয়ে কাজ করেছে। আজ (মঙ্গলবার) প্রকল্পটি অনুমোদন পেয়েছে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে আমাদের আধুনিক কুমিল্লা নগরী গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে।’

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ মনিরুল হক সাক্কু বলেন, ‘কুমিল্লা সিটির উন্নয়নে মেগা প্রকল্প অনুমোদন দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কুমিল্লা নগরবাসীর পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। সেইসাথে এ প্রকল্প অনুমোদনের ক্ষেত্রে সার্বিক দিকনির্দেশনা প্রদান করায় মাননীয় স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম ও কুমিল্লা-৬ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার মহোদয়কেও ধন্যবাদ জানাই।

এদিকে মাননীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের সৃষ্টিলগ্ন থেকে বর্তমানে দশবছরে এতোবড় প্রকল্প আমরা পাইনাই, আমরা আশা করি যদি উল্লেখিত প্রকল্প সুষ্ঠ এবং সুন্দরভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় তাহলে নগরীর নানাবিধ সমস্যা আমরা সমাধান করতে পারবো, তিনি আমাদের স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলামের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান এবং আরো বলেন ওনার প্রচন্ড আগ্রহ থাকার কারনে উল্লেখিত প্রকল্প অনুমোদন সম্ভব হয়েছে, একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদনের বিষয়ে তিনি সর্বোচ্চ গুড়ত্ব দিয়েছেন। এবিষয়ে মহানগর আওয়ামীলীগের সকল নেতা কর্মী ও গণমানুষের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকেও তিনি কৃতজ্ঞতা জানান।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ24।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!