চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা, ৪০ জন ক্ষুদে শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ :পুরষ্কার বিতরণী

এসএম সিরাজ, বগুড়া প্রতিনিধি ।।

65

শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান একজন ক্ষণজন্মা পুরুষ- সাবেক এমপি লালু ।বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক এমপি মোঃ হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান একজন ক্ষণজন্মা পুরুষ। স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েই তিনি নীরব ছিলেন না। তিনি সরাসরি যুদ্ধ করেছেন। রণাঙ্গণে থেকে যুদ্ধ করে তিনি দেশকে মুক্ত করেছেন, স্বাধীন করেছেন। শুধু তাই নয়, ৭৫ সালে যখন জাতি তার ওপরে দায়িত্ব অর্পণ করে তখন তিনি বিভক্ত জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছেন।

তিনি সংবাদপত্রের স্বাধীনতা দিয়েছেন। বহুদলীয় গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিয়েছেন। মানুষের মৌলিক অধিকারগুলো ফিরিয়ে দিয়েছেন। মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা সফল রাষ্ট্রনায়ক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বগুড়া জেলা বিএনপি আয়োজিত ৬ দিনব্যাপী কর্মসূচির প্রথম দিন গতকাল মঙ্গলবার বিকালে দলীয় কার্যালয়ে জেলা ছাত্রদল উদ্দ্যেগে চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উক্ত কথা বলেন। উক্ত চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪০ জন ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।

বগুড়া জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু হাসানের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক নুুরে আলম সিদ্দিকী রিগ্যানের পরিচালনায় পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সাবেক এমপি লালু বলেন, দেশমাতৃকার মুক্তির জন্য নেতৃত্বহীন জাতির দিশারী হয়ে শহীদ জিয়া স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে মুক্তিযুদ্ধ শুরু করেন এবং যুদ্ধে অসীম বীরত্বের পরিচয় দেন। স্বাধীনতা-উত্তর দুঃসহ স্বৈরাচারী দুঃশাসনে চরম হতাশায় দেশ যখন নিপতিত, জাতি হিসেবে আমাদের এগিয়ে যাওয়া যখন বাধাগ্রস্ত হয় ঠিক সেই সংকটের এক পর্যায়ে জিয়াউর রহমান জনগণের নেতৃত্বভার গ্রহণ করেন। মিথ্যা প্রতিশ্রুতির অপরাজনীতি দ্বারা জনগণকে প্রতারিত করে স্বাধীনতা-উত্তর ক্ষমতাসীন মহল যখন মানুষের বাক-ব্যক্তিস্বাধীনতাকে হরণ করে গণতন্ত্রকে মাটিচাপা দিয়েছিল, দেশকে ঠেলে দিয়েছিল দুর্ভিক্ষের করাল গ্রাসে, বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ির আন্তর্জাতিক খেতাবপ্রাপ্ত হতে হয়, জাতির এরকম এক চরম দুঃসময়ে ৭ই নভেম্বর সৈনিক-জনতার ঐতিহাসিক বিপ্লবে শহীদ জিয়া ক্ষমতার হাল ধরেন। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ’ আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব টিকিয়ে রাখারও অবিনাশী দর্শন।

শহীদ জিয়ার জন্মদিনে তাঁর প্রদর্শিত পথেই আমরা আধিপত্যবাদের থাবা থেকে মুক্ত হব ও গণতন্ত্র ফিরে পাব। আর এর জন্য সর্বশক্তি দিয়ে গণতন্ত্রের মা’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে স্বৈরাচারের কারাগার থেকে মুক্ত করতে হবে। আমি এই মহান রাষ্ট্রনায়কের জন্মবার্ষিকীতে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব সুরক্ষা; গণতন্ত্র, মানুষের ভোটাধিকার, ন্যায়বিচার ফিরিয়ে আনা এবং মানুষের হারানো মৌলিক ও মানবাধিকার পুনরুদ্ধার করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাই। এছাড়া বাদ যোহর বায়তুর রহমান সেন্ট্রাল মসজিদে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

বিকাল ৩টায় বগুড়া জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এক ভাচুর্য়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সকালে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্প মাল্য অর্পন করা হয়। দোয়া ও মিলাদ মাহফিল এবং পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ও ভার্চুয়ার আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এ্যাড. সাইফুল ইসলাম, ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও আসন্ন বগুড়া পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশা, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আলী আজগর তালুকদার হেনা, জয়নাল আবেদীন চাঁন, লাভলী রহমান, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মাহবুবর রহমান বকুল, আহসানুল তৈয়ব জাকির, এম আর ইসলাম স্বাধীন, হামিদুল হক চৌধুরী হিরু, তৌহিদুল আলম মামুন, কেএম খায়রুল বাশার, এনামুল কাদের এনাম, শেখ তাহা উদ্দিন নাইন, সহিদ উন নবী সালাম, সাইদুজ্জামান শাকিল, মনিরুজ্জামান মনির, মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল, বগুড়া জেলা যুবদলের আহ্ববায়ক খাদেমুল ইসলাম খাদেম, যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাজেদুর রহমান জুয়েল, যুগ্ম আহ্বায়ক সরকার মুকুল, জেলা কৃষক দলের আহŸায়ক আলহাজ্ব আকরাম হোসেন সহ বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। খবর বিজ্ঞপ্তির।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!