চৌদ্দগ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান; পাঁচ প্রতিষ্ঠানে জরিমানা

68

এম এ হাসান কুমিল্লা।। কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানার নেতৃত্বে স্থানীয় চৌদ্দগ্রাম বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়।এসময় অনিয়ম জনিত কারনে ৫ দোকানে ৩১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

চৌদ্দগ্রাম বাজারের মার্কেট শপিংমল ও বুটিক হাউজে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়।স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিছু শর্ত সাপেক্ষে ১০ মে থেকে মার্কেট শপিংমল গুলো সীমিত আকারে খোলার অনুমতি দিয়েছিল সরকার। সে অনুযায়ী চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারের মার্কেট শপিংমল গুলোও খোলা হয়েছে। কিন্তু গত ৫ দিনে মার্কেট শপিংমল গুলোর ক্রেতা বিক্রেতা কেউ স্বাস্থ্য বিধিসহ অন্যান্য শর্ত গুলো মানেনি বলে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে প্রতীয়মান হয়েছে।

এছাড়া শিশুদের কোলে ও সাথে নিয়ে মাস্ক ছাড়া নারী পুরুষের মার্কেট শপিংমলে অবাধে যাতায়াতের কারণে করোণা সংক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যায়। সারা চৌদ্দগ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা চিন্তা করে ১৫ মে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানা ১৬ মে থেকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার সকল মার্কেট শপিংমল বন্ধ ঘোষণা করেন। তার নির্দেশ অমান্য করে খোলা রাখার কারণে শনিবার সকাল সাড়ে এগারোটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ রানা নেতৃত্বে চৌদ্দগ্রাম বাজারের মার্কেট শপিংমল গুলোতে অভিযান পরিচালনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় পাঁচটি দোকান কে ৩১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে এবং অপরাপর দোকান গুলোকে সর্তক করা হয়েছে। আগামী ঈদ পর্যন্ত উপজেলার অন্যান্য বাজারগুলোতেও অভিযান চালানো হবে বলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান।

এসময় সহকারী কমিশনার (ভুমি) আল আমিন সরকার, কুমিল্লা সেনা নিবাসের এড হক ১৬ এর প্যারার পদাধিক ব্যাটালিয়নের লেঃ খারুল কবিরের নেতৃত্বে সেনাবাহিনী ও চৌদ্দগ্রাম থানা এবং হাইওয়ে পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহযোগিতা করেন।প্রশাসনের এ অভিযান কে সাধুবাদ জানিয়েছেন চৌদ্দগ্রামের সচেতন মহল। প্রশাসনের এ অভিযান অব্যাহত থাকলে করোনা সংক্রমণ থেকে চৌদ্দগ্রামবাসীকে আল্লাহ হেফাজত করবেন বলে অনেকে আশা প্রকাশ করছেন।

আরো পড়ুনঃ