ঝালকাঠির শরৎ- এর বিদায় বেলায় বিসিক শিল্পনগরির কাশবন মানুষের সমাগমে মুখরিত

ঝালকাঠি প্রতিনিধি।।

64

ঝালকাঠিতে শরৎ-এর বিদায় বেলায় শহরতলীতে ঢাপড় বিসিক শিল্পনগরি বিনোদন প্রিয় মানুষের সমাগমে মূখরিত হচ্ছে। ঝালকাঠি জেলায় বিনোদনের মত আকর্ষনিয় পার্ক বা অন্য কোন স্পট না থাকায় প্রাকৃতিক ভাবে জন্ম নেয়া বিসিক এলাকয় কাশবনকেই বিনোদন এর স্পট হিসেবে বেছে নিয়েছে মানুষ।। দুমাস ধরে বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় অব্যবহৃত জায়গায় কাশবনের ফুল ফোটার পর থেকে সব বয়সি মানুষকে আকর্ষন করছে। সপ্তাহের শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটি থাকায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এখানে আসেন এবং ঘুরে বেড়িয়ে যান।

কাশফুল শ্বেত ও শুভ্রতার প্রতীক হলেও একশ্রেণীর তরুন-তরুনীদের মধ্যে অনাকাঙ্খিত উচ্ছাসের কারনে কিছু অনাকাঙ্খিত অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেছে। এখানে আসা বিনোদন প্রিয় মানুষ দাবি করেছে ঝালকাঠিতে দর্শনীয় ও আকর্ষন করা একটি পার্ক নির্মান করা হলে মানুষের বিনোদন সংকট লাঘব হতে পারে।

ঝালকাঠিতে ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে ঝালকাঠি জেলা শহর সংলগ ঝালকাঠি-বরিশাল আঞ্চলিক মাহসড়কে নলছিটি উপজেলার ভৈরবপাশা ইউনিয়নে ঢাপড় এলাকায় বিসিক শিল্পনগরির কাজ শুরু হয়। ১১.০৮ একর মাটি ভরাট করে রাস্তা-বিদ্যুৎ লানের সুবিধা রেখে ৭৯ টি প্লট তৈরি করা হয়।

প্লট বিক্রির মূল্য অত্যাধিক হওয়ায় আগ্রহী ক্ষুদ্র ও মাঝারী শ্রেনীর শিল্প উদ্যোক্তাদের মধ্যে আগ্রহ সৃষ্টি হয়নি। পরবর্তীতে বিসিক প্লটের মূল্য কমিয়ে আনায় সারেং ফার্নিচার প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেছে এবং একই প্রতিষ্ঠানের মালিকানাধীন বিভিন্ন ক্যাটাগরির আরও ৬ টি প্লট বিক্রি হয়েছে ও আরও ৩ জন প্লট কেনার আবেদন করেছে। বিশাল এলাকা খালি থাকায় এখন কাশবনই মানুষের মধ্যে আকর্ষন বাড়িয়েছে। বিসিক কাসবাগানে আসা যুবক পলাশ, জনপ্রতিনিধি সীমা আক্তার, শিক্ষক আফজাল হোসেনসহ অনেকের সাথে কথা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!