ঝিনাইদহে ১০ ঘন্টা পর রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি।।

69

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সাফদারপুর রেল স্টেশনে দুটি মালবাহী ট্রেনের সংঘর্ষে ইঞ্জিনসহ তিনটি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার ১০ ঘণ্টা পর সারাদেশের সাথে খুলনার রেল যোগাযোগ চালু হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে রেল চলাচল স্বাভাবিক হয় বলে জানায় দুর্ঘটনাস্থল কোটচাঁদপুরের সাফদারপুর স্টেশন মাস্টার গোলাম মোস্তফা।
সোমবার রাত পৌনে ২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে তেলবাহী ট্রেনের ৫টি বগি লাইনচ্যুত হয় এবং ৩টি তেলের ট্যাংকার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

এদিকে এই দুর্ঘটনার কারণ উদ্ঘাটন করতে রেলওয়ের পাকশী সহকারী ট্রাফিক অফিসার আব্দুস সোবহানকে প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সাফদারপুর স্টেশনের মাস্টার গোলাম মোস্তফা জানান, দর্শনা থেকে নওয়াপাড়াগামী পাথরবাহী ডিজেএন-২৬ ডাউন ট্রেন সাফদারপুর স্টেশনে দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ডিজেলবাহী কেপি-২১ আপ ট্রেনটি পার্বতীপুর যাচ্ছিল। ট্রেনটি সাফদারপুর স্টেশনে আসলে চালক সিগন্যাল না মেনে দাঁড়িয়ে থাকা পাথরবোঝাই ট্রেনটিকে সামনে থেকে ধাক্কা দেয়। এতে তেলবাহী ট্রেনের ৫টি ট্যাংক লাইনচ্যুত হয়।

তিনি জানান, পরে সকাল ৭টার দিকে ঈশ^রদী থেকে রিলিফ ট্রেন আসার পর উদ্ধার কাজ শুরু করে। উদ্ধারকারী ট্রেনটি পাথরবোঝাই ট্রেনটিকে দর্শনা স্টেশনে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। এরপর দুপুর ১২টার দিকে লাইন ক্লিয়ার হলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

কোটচাঁদপুর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আব্দুর রাজ্জাক জানান, খুলনা থেকে ডিজেলবাহী কেপি-২১ আপ ট্রেনটির ৩টি ট্যাংকারের তেল ঘটনাস্থলে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিটি ট্যাংকে ৫০ হাজার লিটার তেল ছিল বলে তিনি জানান। এতে সতর্কতা অবলম্বন না করলে যে কোন সময় চারিদিকে ছড়িয়ে পড়া তেলে আগুন লেগে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা রেল লাইন ও আশপাশে পানি ছিটিয়ে চলেছে এবং এলাকাবাসীকে সতর্ক থাকার জন্য বলা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!