ডোমার উপজেলা পরিষদে দুষ্কৃতিকারীদের হামলা, সরকারি কাজে বাধা থানায় মামলা

সুভাষ বিশ্বাস নীলফামারী।।

৪৬৪

নীলফামারী ডোমার উপজেলা কৃষি অফিসে হামলা লাঞ্চিত উপজেলা চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য কর্মকর্তা । বিশেষ সুবিধার জন্য কৃষি কর্মকর্তাকে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে ঘটনাটি ঘটেছে ২০ জুন সোমবার সন্ধ্যায়।

প্রতিদিনের মতোই বিকালে খেলছিল পঞ্চম শ্রেণীর সিয়াম ও চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র মৃন্ময় ।হেলিপ্যাড মাঠে খেলার সময় সাইকেল চালানো নিয়ে ওই দুজনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে মৃণ্ময়ের মা কৃষি কর্মকর্তা আনিসুজ্জামান এর স্ত্রী ঘটনাটি কোয়ার্টারের জানলা দিয়ে দেখে দ্রুত দু’জনকেই কোয়াটারে নিয়ে আসে এবং কৃষি কর্মকর্তা আনিসুজ্জামানকে বিষয়টি জানালে তিনি দ্রুত অফিস থেকেএসে দু’জনকেই বোঝাতে চেষ্টা করে ঝগড়া ঝাটি করা ঠিক না । বলে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন
বিষয়টি সম্পূর্ণ না বুঝে সিয়ামের খেলার সাথীরা ভয় পেয়ে দৌড়ে অন্যান্যদের খবর দেয় সিয়াম কে ধরে নিয়ে গেছে মৃণ্ময়ের মা বাবা সিয়ামের বুকত পাও চরে দিছে মারপিট করেছে এই খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে ডাঙ্গাপাড়া এলাকার স্থানীয় মানুষজন সন্ধ্যা সাতটার পরে ডোমার উপজেলা পরিষদ ভবনে অবস্থিত কৃষি অফিসে হামলা করে এ সময় উপজেলা পরিষদে অবস্থিত, উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা, উপজেলা চেয়ারম্যান , কৃষি কর্মকর্তা সহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন । ডোমার উপজেলা চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ বিষয়টি নিয়ে সিয়ামের পরিবারের সাথে কথা বলতে গেলে উত্তেজিত জনতা তাকেও লাঞ্চিত চেষ্টা চালায় বলে এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে উপজেলা পরিষদের একাধিক কর্মকর্তা কর্মচারী ।
অফিস ভাঙচুর সরকারি কাজে বাধা প্রদান এর অভিযোগে কৃষি কর্মকর্তা আনিছুজ্জামান বাদী হয়ে ঐদিন মামলা করেন মামলা নং 6 ।

পার্শ্ববর্তী ডাঙ্গাপাড়া এলাকার মোফাজ্জল হোসেন মোফার ছেলে সিয়াম, মা স্বপ্না আক্তার বলেন তার ছেলে সিয়াম দীর্ঘদিন থেকে অসুস্থ্য।খাদ্যনালি চিকন হয়ে যাচ্ছে। ৫ম শ্রেণিতে পরলেও অসুস্থ্য থাকার কারণে তাকে খৎনা দেওয়া যায়নি মানসিক ভাবেও একটু সমস্যা অপারেশনে জন্য ভারতে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি চলছে। বিভিন্নভাবে সহযোগিতার মাধ্যমে পাসপোর্ট ও চিকিৎসার খরচ জোগাড় করছি।

ডোমার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আনিসুজ্জামান জানান, বিষয়টি কিছুই হয়নি দুজনের মধ্যে সাইকেল চালনা নিয়ে হাতাহাতি হয় সেটা আমি মীমাংসা করে দিয়েছি । কিন্তু পরিকল্পিতভাবে একটি পক্ষ আমাকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলার জন্য মিথ্যা বানোয়াট তথ্য দিয়ে স্থানীয় মানুষকে বিভ্রান্ত করে আমার সুনাম ক্ষুন্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে । অপরদিকে বিশেষ সুবিধা না পেয়ে একটি মহল অপপ্রচারে লিপ্ত ।

ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাইফুল ইসলাম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে তাদের আদালতে মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে।

ডোমার উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রমিজ আলম জানান, সোমবার সন্ধ্যায় অফিসে এসে কিছু লোক হামলা করে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!