তাহিরপুরে ব্যনায় ডুবে যাচ্ছে শিবরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

70

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি।। গেল বন্যার ক্ষত না শুকাতেই আবার বন্যায় প্লাবিত তাহিরপুর হাওরাঞ্চল। অতিবৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে জেলার প্রধান নদী সুরমা, যাদুকাটা, রক্তি ও পাটলাই সহ কয়েকটি নদীর বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

ইতি মধ্যে বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে উপজেলার হাওর পারের অর্ধশতাধিক গ্রাম,প্লাবিত হতে শুরু করেছে উপজেলার তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলগুলো। করোনা সংকটকালীন সময়েও একেরপর এক বন্যায় হাওর বেষ্টিত নিম্নাঞ্চলের মানুষের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ।

জানাযায় গত বুধবার বিকাল থেকে ফের টানা বৃষ্টিতে উপজেলার হাওর পারের নিম্নাঞ্চলে বন্যার পানি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। পানি বৃদ্ধির ফলে অল্প বাতাসেই সাগররুপি ঢেউ সৃষ্টি হয়ে,ঢেউয়ের প্রচণ্ড আঘাতে বাড়িঘর ভাঙচুর করে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শিকার হচ্ছে।ঢেউয়ের আঘাত হতে বাড়িঘর রক্ষা করতে প্রাণপণ চেষ্টা করলেও নেই পর্যাপ্ত বাঁশকাঠ ও বন। নিরুপায় হয়ে কেউ কেউ আশপাশের উঁচু কোন স্থান ও বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিচ্ছে।

স্থানীয়দের তথ্যমতে জানাযায় উপজেলার হাওর পারের প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামের অধিকাংশ ঘরেই পানি ঢুকে পড়েছে এবং রাস্তাঘাট ও গো-খাদ্যের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে পানি ঢুকে চিকিৎসা সেবার ব্যাঘাত ঘটছে।

তথ্যসুত্রে জানাযায় উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের বন্যায় গৃহহীন মানুষজন ৩টি আশ্রয় কেন্দ্রে উঠতে শুরু করেছে,শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নে ৩টিতে, বালিজুরী ইউনিয়নে ১টিতে, এবং বাদাঘাট ইউনিয়নে ১টি আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে শুরু করেছে।

এ বিশেয়ে মন্দিয়াতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সানজু মিয়া বলেন, আমাদের হাওর পারের প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামের অধিকাংশ বসতবাড়িতে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে, কেউ কেউ নিজের বসতভিটের মায়ায় বাড়ি না ছেড়ে বিভিন্ন উপায়ে ঘরেই আছে আবার কেউ কেউ পার্শ্ববর্তী আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে।

উনি বলেন আমাদের হাওর পারের জয়পুর, গোলাবাড়ি, ছিলানী তাহিরপুর, মন্দিয়াতা, মুজরাই, শ্রীয়ারগাও, কামালপুর, বিনোদপুর, ইন্দ্রপুর, লামাগাও, পাটাবুকা, শিবরামপুর, তরং, শ্রীপুর, বেতাগড়া, ভবানীপুর, সন্তোষপুর, জাঞ্জাইল, ইকরামপুর, দোমাল,সহ অর্ধশতাধিক গ্রামে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে এবং সাগররুপি ঢেউয়ের প্রচণ্ড আঘাতে বাড়িঘর ভাঙচুর ও গো-খাদ্যের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিসহ বিভিন্ন ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এবং পানি বন্দি হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!