দীর্ঘ ৯ মাস পর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আমদানি শুরু

হিলি প্রতিনিধি

৫২

দেশের বাজারে কাচামরিচের মুল্য নিয়ন্ত্রনে আমদানির অনুমতি দেওয়ায় দীর্ঘ ৯ মাস বন্ধের পর দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে কাচামরিচ আমদানি শুরু করেছেন বন্দরের আমদানিকারকগন। এতে করে দেশের বাজারে কাচামরিচের দামের যে উদ্ধমুখি অবস্থা রয়েছে তা নিয়ন্ত্রনে চলে আসবে বলে দাবী আমদানিকারগনের।

শনিবার দুপুর পৌনে ২টায় ভারত থেকে কাচামরিচ বাহী দুটি ট্রাক দেশে প্রবেশের মধ্য দিয়ে বন্দর দিয়ে পুনরায় কাচামরিচ আমদানি শুরু হয়। দুটি ট্রাকে সর্বমোট ১৫টন ৩০ কেজি কাচামরিচ আমদানি করা হয়। হিলি স্থলবন্দরের হিলি শিপিং লাইন নামের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এসব কাচামরিচ আমদানি করেছেন যা ভারতের জগৎবাবা নামের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান রফতানি করেছেন। পরে আরো ৩টি ট্রাকে ২৭টন কাচামরিচ আমদানি হয়।

হিলি স্থলবন্দরের কাচামরিচ আমদানিকারক জামিল হোসেন জানান, গতকয়েকদিন ধরে তীব্র গরম, খড়া ও অতিবৃষ্টির কারনে কাচামরিচের উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় দেশে হঠাৎ করে কাচামরিচের সররবাহ কমে দাম উদ্ধমুখি হয়ে যায়। কাচামরিচের দাম বাড়তে বাড়তে ২৫০টাকায় গিয়ে দাড়ায় যা সাধারনের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে যায়। এমন অবস্থায় দেশে দাম নিয়ন্ত্রনে ভারত থেকে কাচামরিচ আমদানির উদ্যোগ নিয়েছিলাম। যার কারনে আমদানির অনুমতি (আইপি) এর জন্য আবেদন করেছিলাম কিন্তু সরকার না দেওয়ায় সেটি এতদিন সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি কাচামরিচের মুল্য নিয়ন্ত্রনে সরকার গতবৃহস্পতিবার বিকেলের পর আইপি দিয়েছে। হিলি স্থলবন্দরের দুটি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এই অনুমতি পেয়েছে। এর মধ্যে আমি মেসার্স হিলি শিপিং লাইন ৫শ টন ও সততা বানিজ্যালয় ১হাজার টন কাচামরিচ আমদানির অনুমতি পেয়েছে। আমি আমদানির অনুমতি পাওয়ার পর গতবৃহস্পতিবারেই কাচামরিচ আমদানির জন্য এলসি খুলেছিলাম। এরপর আজ শনিবার বন্দর দিয়ে ভারত থেকে প্রথম কাচামরিচ আমদানি শুরু হয়েছে। এতে করে দেশের বাজারে কাচামরিচের সরবরাহ যেমন বাড়বে তেমনি কাচামরিচের দাম নিয়ে যে অস্থিরতা বিরাজ করছে সেটি নিয়ন্ত্রনে আসবে কাচামরিচের দাম কমে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ভারতের বিহার প্রদেশ থেকে এই কাচামরিচ আমদানি দেশে আমদানি করা হচ্ছে। প্রতিটন কাচামরিচ ১৫০ থেকে ২০০ মার্কিন ডলার মুল্যে আমদানি করা হচ্ছে। যা কাস্টমসে ৫শ মার্কিন ডলার মুল্য ধরে শুল্কায়ন করছেন এতে করে কেজিতে ২৮টাকা ১০ পয়সার মত শুল্ক পরিশোধ করতে হচ্ছে আমাদেরকে।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন,বন্দর দিয়ে গতবছরের ১০ নভেম্বর সর্বশেষ ভারত থেকে কাচামরিচ আমদানি হয়েছিল। দীর্ঘ ৯ মাস বন্ধের আজ আবারো বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কাচামরিচ আমদানি শুরু হয়েছে। কাচামরিচ আমদানির ফলে সরকারের রাজস্ব আহরন যেমন বাড়বে তেমনি বন্দর কতৃপক্ষের দৈনন্দিন আয় বাড়বে। কাচামরিচ যেহেতু কাচাপণ্য গরমে দ্রুত পচে নষ্ট হয়ে যায় যার কারনে বন্দর কতৃপক্ষ সবসময় কাচাপণ্যকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে। কাস্টমসের সকল প্রক্রিয়া সম্পুর্ন করে দ্রুততার সহিত যেন আমদানিকারকরা কাচামরিচ খালাস করে নিতে পারেন এজন্য বন্দর কতৃপক্ষ সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করে রেখেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!