দুই বছর পর জনসমক্ষে দালাই লামা

অনলাইন ডেস্ক।।

৫৭

করোনাভাইরাসের আবহে দীর্ঘদিন জনসমক্ষে আসেননি তিব্বতি ধর্মগুরু দালাই লামা। ২০২০ সালের মার্চের পর আর জনসমক্ষে দেখা যায়নি তাকে। তবে দীর্ঘ দুই বছর পর শুক্রবার ফের জনসমক্ষে আসেন বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের এই ধর্মগুরু। এদিন বহু সংখ্যক তিব্বতি এবং সেন্ট্রাল তিব্বত অ্যাডমিনস্ট্রেশনের বহু সদস্যের উপস্থিতিতে বক্তব্যও রাখেন তিনি।

তার বক্তব্যে এদিন ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর প্রসঙ্গও উঠে আসে। এছাড়া নিজের অনুগামীদের জাতক কাহিনীর গল্পও শোনান তিনি। তার আগে তিনি সবাইকে আশ্বস্ত করেন যে, তিনি সুস্থ আছেন।

৮৬ বছর বয়স্ক তিব্বতি এই নেতা শুক্রবার তিব্বতিদের প্রধান মন্দির সুগ্লাগখাংয়ে বক্তব্য রাখেন। গৌতম বুদ্ধের আশ্চর্য ক্ষমতা প্রদর্শনের দিন পালন করতে এই অনুষ্ঠানের আযোজন করা হয়।

এ বিষয়ে সেন্ট্রাল তিব্বত অ্যাডমিনস্ট্রেশনের টুইটারে দালাই লামাকে উদ্ধৃত করে লেখা হয়, ‘আমি ভেবেছিলাম এখনই দিল্লিতে গিয়ে মেডিক্যাল চেক-আপ করিয়ে নেব। যাইহোক, আমি অসুস্থ বোধ করছি না এখন, তাই আমি না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সাধারণত, শীতের সময়, আমি বুদ্ধগয়ায় যাই, কিন্তু এই বছর আমি ধর্মশালায় ছিলাম। এখানেই বিশ্রাম নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম আমি। আমি একটি ‘মো’ও ছুড়ে দিয়েছিলাম, যা নির্দেশ করে যে, এটা করাই আমার জন্য ভালো হবে।’

এ সময় স্মৃতিচারণা করে দালাই লামা বলেন, ‘আমি জওহরলাল নেহরুর কাছে আবেদন জানিয়েছিলাম, যাতে তিব্বিতি ছেলে-মেয়েদের জন্য স্কুল তৈরি করে দেয়া হয়।’

শেষে তিনি বলেন, ‘আমি বর্তমানে ভারত সরকারের অতিথি হিসেবে আছি। তবে তিব্বতের সংস্কৃতি আমার মনে চিরকাল থাকবে।’ সূত্র- হিন্দুস্তান টাইমস।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!