নীতিমালা লঙ্ঘন করায় ট্রাম্পের ‘বিভ্রান্তিকর’ পোস্টের ব্যবস্থা নিল ফেসবুক-টুইটার

অনলাইন ডেস্ক।।

37

করোনা নিয়ে ট্রাম্পের ‘বিভ্রান্তিকর পোস্ট’ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার তার ওই পোস্ট ফেসবুক এবং টুইটারের নীতিমালা লঙ্ঘন করায় এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এক পোস্টে ট্রাম্প বলেন, কোভিড-১৯ হচ্ছে ফ্লুর মতোই। তার এই পোস্ট ‘বিভ্রান্তিকর’ এবং এই তথ্যে বিধিমালা লঙ্ঘন করেছে বলে সামাজিক মাধ্যমগুলো।

ইতোমধ্যেই ট্রাম্পের ওই ওই পোস্ট ডাউন করে দিয়েছে ফেসবুক। তবে তার আগেই ওই পোস্টটি ২৬ হাজার বার শেয়ার করা হয়েছে। ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা কোভিড-১৯ সংক্রান্ত যাবতীয় ভুল তথ্য মুছে ফেলি।’ একই ধরনের পোস্ট মুছে ফেলেছে টুইটারও।

সাধারণত ফেসবুক রাজনীতিবিদদের থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট চেকিং প্রোগ্রাম থেকে ছাড় দেয়। আবার মার্কিন রাষ্ট্রপতির পোস্টের বিরুদ্ধেও খুব কম পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় ফেসবুককে। কিন্তু এবার এসব থেকে ছাড় পায়নি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পোস্ট।

তবে এই প্রথম না, এর আগেও গত আগস্টে করোনভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য দেওয়ার জন্য ট্রাম্পের পোস্ট সরিয়ে দিয়েছিল ফেসবুক। সেই পোস্টে একটি ভিডিও শেয়ার করে ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, শিশুরা করোনা তেমন আক্রান্ত হয় না।

সম্প্রতি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তিনদিন চিকিত্সার পর স্থানীয় সময় সোমবার হাসপাতাল থেকে হোয়াইট হাউসে ফিরেছেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে ফিরেই নিজের মাস্ক খুলে ফেলে তিনি জানান, খুব শিগগিরই নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেবেন। পাশাপাশি ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘করোনাকে নিয়ে ভয় পাবেন না। এই ভাইরাসকে আপনার জীবন নিয়ন্ত্রণ করতে দেবেন না।’

করোনা হওয়ার পর থেকেই ট্রাম্পর শারীরিক অবস্থা নিয়ে নানারকম বিতর্ক শুরু হয়। হোয়াইট হাউস এবং তার বক্তব্যে মিল ছিল না। ট্রাম্প করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানতে পেরেও তা গোপন করতে চেয়েছিলেন বলেও অভিযোগ ওঠে।

মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার করোনা ভাইরাস পজিটিভ হওয়ার রিপোর্ট বৃহস্পতিবার হাতে পেয়েছিলেন। তখন তিনি বিষয়টি গোপন করতে চেয়েছিলেন।

এছাড়াও সামনে নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে সমর্থকদের চাঙ্গা রাখার জন্য রোববার ওয়াল্টার রিড হাসপাতালের স্যুট থেকে কিছু সময়ের জন্য বাইরে বেরিয়ে এসে মোটর গাড়িতে উঠে হাত নাড়ান ট্রাম্প। একেবারে প্রটোকল ভেঙে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এভাবে খোদ প্রেসিডেন্ট করোনার নিয়ম ভঙ্গ করায় ক্ষুব্ধ অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন চিকিৎসকরা। ট্রাম্পের এমন কাজে চমকে গিয়েছেন স্থানীয় মানুষজনও। কারণ ট্রাম্পের এমন কর্মসূচির কোনও পরিকল্পনা ছিল না। নিজে করোনায় আক্রান্ত হলেও এখনও এই প্রাণঘাতী ভাইরাসকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!