নোয়াখালীতে বিবস্ত্র করে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় আটক-১, মাঠে পুলিশের ৫ টিম

নোয়াখালী প্রতিনিধি।।

1,582

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে মধ্যযুগীয় কায়দায় স্বামীকে বেঁধে রেখে গৃহবধূকে নিজ ঘরে যৌন নির্যাতন করে বিবস্ত্র করে পৈশাচিক নির্যাতন করেছে স্থানীয় বখাটে একদল যুবক। এখানেই শেষ নয়,শেষে নির্যাতিতা ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে তার ভিডিও চিত্র ধারণ করে।

রোববার (৪ অক্টোবর) দুপুরের দিকে ঘটনার ৩২দিন পর গৃহবধূকে নির্যাতনের ঐ ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ হলে ইতিমধ্যে তা ভাইরাল হয়ে গেলে টনকনড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। ঘটনার পর থেকে গত ৩২ দিন অভিযুক্ত স্থানীয় দেলোয়ার, বাদল, কালাম ও তাদের সহযোগীরা যৌন নির্যাতন করে গৃহবধূর পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুরো ঘটনা থেকে যায় স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে। সরেজমিনে গেলে দেখা যায়,বর্তমানে নির্যাতিতা ওই পরিবারের বসতঘরে তালা ঝুলছে, ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা কোথায় আছে কেউ বলতে পারছে না।

স্থানীয়রা জানায়,খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা মডেল পুলিশ রোববার বিকেল ৪টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযুক্ত এক যুবককে আটক করে। আটককৃত,আব্দুর রহীম (২৭) একলাশপুর ইউনিয়নের পূর্ব একলাশপুর গ্রামের হাড়িধন বাড়ির বাসিন্দা।

স্থানীয়রা বলছে,গত মাসের (২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়দের অভিযোগ,ওই গৃহবধূকে যৌন নির্যাতন বা ধর্ষণ করা হয়ে থাকতে পারে। ঘটনার ৩২ দিন অতিবাহিত হলেও ভুক্তভোগি পরিবার এ ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করে নি।

এ বিষয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুন অর রশীদ চৌধুরী জানান,পুলিশ বতর্মানে ঘটনাস্থলে রয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। ভিকটিমের ঘরে তালা ঝুলছে,ওই গৃহবধূকে তার বসত ঘরে পাওয়া যায়নি। ভিকটিমকে পাওয়া গেলে জানা যাবে এটি ধর্ষণ না নির্যাতনের ঘটনা।

এ ঘটনায় নোয়াখালী পুলিশ সুপার(এসপি) মো. আলমগীর হোসেন জানান, অভিযুক্তদের গ্রেফতারে এবং নির্যাতিতা পরিবারকে উদ্ধারে জেলা পুলিশের ৫টি ইউনিট মাঠে কাজ করছে।আসা করি জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো ইনশাআল্লাহ।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!