পেশা হিসেবে নয়; ব্রত নিয়ে স্বাস্থ্য সেবা প্রদানে চিকিৎসকদের এগিয়ে আসতে হবে- এলজিআরডি মন্ত্রী

74
লাকসাম প্রতিনিধি।।

স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোর গোড়ায় পৌঁছে দিতে বর্তমান সরকার বদ্ধ পরিকর। তাই জনগণের সঠিক স্বাস্থ্য সেবা প্রাদনে চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত সকলকে আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করতে হবে। কোনো ভাবেই রোগীদের সঙ্গে অসদাচরন করা যাবে না। পেশা হিসেবে নয়; ব্রত নিয়ে স্বাস্থ্য সেবা প্রদানে চিকিৎসকদের এগিয়ে আসতে হবে। হাসপাতালের পরিবেশ সুন্দর এবং পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। হাসপাতালের বর্জগুলো নির্দিষ্ট স্থানে ফেলে এগুলো সঠিক ভাবে ধ্বংস করতে হবে।

শুক্রবার সকালে লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি এই কথাগুলো বলেন।

ওইদিন সকাল ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. মোস্তফা হলে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল আলীর সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, লাকসাম উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট মো. ইউনূস ভূঁইয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম সাইফুল আলম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলী, পৌরসভা মেয়র অধ্যাপক মো. আবুল খায়ের প্রমূখ।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের লক্ষ্যে কমিউিনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেছিলেন। অথচ বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় এসে দেশের শত শত কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হয় গ্রামীণ সাধারণ মানুষ। ওই সব সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এসে বন্ধ হয়ে যাওয়া কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো পুনঃরায় চালুর মাধ্যমে গ্রাম-গঞ্জের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করেছেন। এ ছাড়া, বেকার যুব সমাজের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জনবল সংকটসহ বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ওইসব সমস্যা সমাধানসহ এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেটি আধুনিকরণের আশ্বাস দেন।

মন্ত্রী, চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের উদ্দেশ্যে বলেন, পেশা হিসেবে নয়; চিকিৎসকদের ব্রত নিয়ে স্বাস্থ্য সেবা প্রদানে মানসিকতা অর্জন করা প্রয়োজন। তবেই বিশাল দরিদ্র জনগোষ্ঠী প্রকৃত চিকিৎসা সেবা পাবেন। তিনি প্রত্যেককে নিজ নিজ ক্ষেত্রে দায়িত্বশীলতার সঙ্গে কর্তব্য পালনের আহবান জানান।
আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!