ফেনীতে নদীর ত্রুটিপূর্ণ বাঁধ, ক্ষতির মুখে কয়েক লাখ মানুষ

61

অনলাইন ডেস্ক।। ফেনীতে ত্রুটিপূর্ণ বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের কারণে বছর বছর ক্ষতির মুখে পড়ছেন কয়েক লাখ মানুষ। ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে বাঁধ ভেঙে ক্ষতি হচ্ছে ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাটের। ফসলহানির পাশাপাশি ভেসে যাচ্ছে পুকুরের মাছ। পানি উন্নয়ন বোর্ড সংস্কারের কথা বললেও স্থায়ী সমাধানের দাবি ভুক্তভোগীদের।

২০১১ সালে ফেনী সদর, ফুলগাজী, পরশুরাম ও ছাগলনাইয়া উপজেলাকে বন্যার কবল থেকে রক্ষায় মুহুরী-কহুয়া-সিলোনিয়া নদীর তীরে নির্মাণ করা হয় ১২২ কিলোমিটার বাঁধ। কিন্তু, নির্মাণের পর থেকে স্থানীয়দের জন্য আশীর্বাদের বদলে অভিশাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে বাঁধটি। ভারী বৃষ্টি হলেই ভারতের ত্রিপুরা থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে দেখা দেয় ভাঙন। প্রতি বছরই ভাঙে ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাট। তলিয়ে যায় ফসলি জমি, ভেসে যায় পুকুরের মাছ।

গত রবিবার (১২ জুলাই) রাতে এই বাঁধের ৯টি স্থান ভেঙে বন্যা কবলিত হয়েছে পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলার ১৫টি গ্রাম। পনিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় প্রায় ৯ হাজার মানুষ। ভাঙনের কারণ হিসেবে বাঁধ নির্মাণে ত্রুটিপূর্ণ পরিকল্পনাকে দুষছেন স্থানীয়রা।

বছর বছর ভাঙনের বিষয়টি মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে বলে জানান পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জহির উদ্দিন। পানি নেমে গেলে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ সংস্কারে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার কথাও জানান তিনি।

এদিকে, শুধু সংস্কার নয়, শিগগিরই সমস্যার স্থায়ী সমাধান চান ভুক্তভোগীরা।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!