বাইশগাঁও ইউনিয়নে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তোফায়েল আহাম্মদ

মোঃ হুমায়ুন কবির মানিক, কুমিল্লা প্রতিনিধি।

51

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার ১নং বাইশগাঁও ইউনিয়নবাসীর সেবায় আত্মনিয়োগ করতে চান আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহাম্মদ। তিনি বাইশগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত. মোঃ আব্দুল মালেকের ছেলে। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় সমর্থন পেলে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা পিতার আদর্শ ও অনুশাসনে আওয়ামী পরিবারে বেড়ে ওঠা তোফায়েল আহাম্মদ শৈশব থেকেই আওয়ামী পন্থী। তিনি ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী রাজনীতির সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত। জীবনের প্রতিটি পদক্ষেপে তিনি সাফল্যের স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনি বাইশগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক, মান্দারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, সোনাইমুড়ী ডিগ্রি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, লাকসাম নওয়াব ফয়জুন্নেসা কলেজ থেকে স্নাতক এবং ঢাকা কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

প্রাথমিক জীবনে একাধিক বেসরকারি কোম্পানীতে চাকুরী করার পর দীর্ঘদিন যাবৎ প্রবাসে (দুবাই) সাফল্যের সাথে নিজস্ব ব্যবসাকার্য পরিচালনা করেন তোফায়েল আহাম্মদ। বর্তমানে তিনি স্বদেশে নিজস্ব ব্যবসা এবং রাজনীতিক কর্মকান্ডের পাশাপাশি সামাজিক কর্মকান্ডেও অগ্রণী ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন।

এর আগে প্রবাসে থাকাকালেও তিনি বিভিন্ন উৎসব-আয়োজন এবং দুর্যোগকালে সাধ্যানুযায়ী নিজ এলাকার মানুষের পাশে ছিলেন। মহামারী করোনার প্রারম্ভিককালে তিনি নিজস্ব অর্থায়নে নিজ এলাকার কয়েক শত পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা এবং নিজ গ্রামের প্রায় সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আর্থিক অনুদান দিয়েছেন। এছাড়াও তিনি লোকচক্ষুর অন্তরালে কিছু সংখ্যক হতদরিদ্র পরিবারকে সার্বিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত রেখেছেন।

এদিকে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে বাইশগাঁও ইউনিয়নের বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় নির্বাচনী আমেজ দেখা গেছে। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নিয়ে আলোচনার ঝড় বইছে। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীদের মধ্যে সৎ, পরিচ্ছন্ন, কর্মঠ ও পরোপকারী ব্যক্তি হিসেবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান তোফায়েল আহাম্মদের নাম সর্বাধিক শোনা যাচ্ছে। প্রতিবেদকের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় সমর্থন পেলে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আগ্রহ প্রকাশ করে তোফায়েল আহাম্মদ বলেন, ‘আমি বীর মুক্তিযোদ্ধা পিতার আদর্শ ও অনুশাসনে আওয়ামী পরিবারে বেড়ে উঠেছি।

শৈশব থেকেই মানুষের কল্যাণে নিজেকে নিবেদিত করার স্বপ্ন বুকে লালন করেছি। এযাবৎ আমি আমার সর্বাত্মক দিয়ে নিজ এলাকার সর্বস্তরের মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আমি মনে করি, জনপ্রতিনিধিত্ব হচ্ছে মানুষের সেবা করা ও মানুষকে ভালোবাসার অন্যতম মাধ্যম। এ লক্ষ্যেই আমি আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় সমর্থন পেলে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আগ্রহী। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আমার অতীত-বর্তমান, পারিবারিক বৃত্তান্ত এবং জনমত বিবেচনা করে আমাদের প্রিয়নেতা, মাননীয় এলজিআরডি মন্ত্রী, লাকসাম-মনোহরগঞ্জের অভূতপূর্ব উন্নয়নের মহানায়ক।

গরীব-দুঃখী মানুষের আস্থার শেষ ঠিকানা মোঃ তাজুল ইসলাম এমপি মহোদয় আমাকে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাইশগাঁও ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগ দেবেন। আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের দিক-নির্দেশনা মোতাবেক আমার এলাকায় ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা, বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়, সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয় রোধ, বৃদ্ধ পিতা-মাতার প্রতি নির্যাতনকারী সন্তানকে আইনের মাধ্যমে জেল-হাজতে প্রেরণসহ এলাকায় সকল প্রকার অসামাজিক কার্যকলাপের মূলোৎপাটন এবং এলাকাকে সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত করতে অগ্রণী ভূমিকা রাখবো ইনশাআল্লাহ।’

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!