ব্যাংক ম্যানেজারের টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ: মামলা হলেও গ্রেপ্তার নেই

কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি।।

95

ঝালকাঠির রাজাপুরে ঝালকাঠি-ভান্ডারিয়া মহাসড়কের হাইজাক মোড় এলাকায় ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে সর্বশ্ব হারিয়েছেন কৃষি ব্যাংকের সাবেক ম্যানেজার মো. সিদ্দিকুর রহমান। মঙ্গলবার বিকেলে ছিনতাইয়ের ঘটনায় রাজাপুর থানায় ৭জনের নামে রাতেই মামলা করেন মো. সিদ্দিকিুর রহমান । বুধবার সন্ধ্যায় ঝালকাঠি প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে আসামীদের দ্রæত গ্রেপ্তার ও ছিনতাইকৃত এক লাখ সত্তর হাজার টাকা উদ্ধারের দাবি জানান ছিনতাইয়ের শিকার সিদ্দিকুর রহমান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার হিসাবে বিভিন্ন শাখায় কর্মরত ছিলাম। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে রাজাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আহসান হাবিব রুবেল এর ছোট ভাই ও ভুয়া মেজর খ্যাত তোফাজ্জেল হোসেনের এর ছেলে রফিকুল ইসলাম (রাজু), আজিজ খান’র ছেলে রাসেল খান, সেলিম তালুকদারের ছেলে সাকিব তালুকদার, আব্দুর শুকুরের ছেলে সুজন, রাব্বি, জিলান, রাজাপুর এপোলো ডায়াগোনোস্টিক সেন্টারের কর্মচারী তৌহিদুল ইসলাম (চান) সহ আরও অজ্ঞাত কয়েকজন আমাকে রাজাপুর থেকে বরিশালের যাওয়া চলমান গাড়ির মধ্যে থেকে জোড় পূর্বক নামিয়ে লাঠি এবং রড দিয়া মারধর করে এবং অস্ত্র দেখিয়ে গাড়ি থেকে হাইজ্যাক মোড় মসজিদের কাছে নামিয়ে সাথে থাকা ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। আমার ডাক চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীরা টাকা নিয়ে দ্রæত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

তিনি আরো জানান, ঐ দিনই কৃষি ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করেন বরিশাল থেকে স্বমিলের মালামাল ক্রয়ের জন্য। পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা টাকা উত্তোলনের বিষয়টি জানতে পেরে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটায়। রাজাপুর থানায় মামলা দায়েরের ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করেনি। মামলা করার পরে অত্যন্ত নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এবং সার্বিক নিরাপত্তা এবং ছিনিয়ে নেয়া ১লাখ ৭০হাজার টাকা উদ্ধারের দাবি জানান, কৃুিষ ব্যাংক ঝালকাঠি বাসন্ডা শাখার সাবেক ম্যানেজার সিদ্দিকিুর রহমান। রাজাপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, মামলা দায়েরের পর থেকে আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। আসামীরা গা ঢাকা দিয়েছে। ঝালকাঠিতে আটোচালককে পিটিয়ে হত্যায় ১২ জনের নামে মামলা

ঝালকাঠি সদর উপজেলার তারুলী গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে আটোরিকশাচালক লুৎফর রহমানকে (৫০) পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার ঝালকাঠি থানায় ১২ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের স্ত্রী নুর নাহার। গত মঙ্গলবার সকালে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় লুৎফর রহমানের মৃত্যু হয়।

নিহতের স্বজনরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে প্রতিবেশী গোলাম মোস্তফা ও আবদুল হাই হাওলাদারদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল লুৎফর রহমানের। বিরোধীয় জমির ওপর দিয়ে লুৎফর রহমান ও তাঁর ছেলে অটোরিকশা নিয়ে যাওয়ার সময় গত ২২ ডিসেম্বর সকাল ১১ টায় প্রতিপক্ষ মোস্তফা হাওলাদারের লোকজন হামলা চালায়। তারা পিটিয়ে লুৎফর রহমানকে গুরতর আহত করে। গুরুতর অবস্থায় তাদেরকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করার পরে সেখানেও হামলা চালানো হয় লুৎফর রহমানের ওপর। পরে তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন থাকার পর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। সোমবার পুনরায় লুৎফর রহমান অসুস্থ হয়ে পড়লে আশংকাজনক অবস্থায় বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যারয় হাসপাতালে ভর্তি করা হলে মঙ্গলবার সকালে সেখানে তার মৃত্যু হয়। এদিকে তার লাশ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসলে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। স্বজনদের আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে ওঠে।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে গোলাম মোস্তফা বলেন, অটোরিকশাচালক ও তাঁর পরিবার উল্টো তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। উভয় পক্ষের লোকজনই হাসপাতালে ভর্তি ছিল। আমাদের পক্ষের কেউ তাকে মারেনি। এদিকে লুৎফর রহমানের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় গত ২২ ডিসেম্বর হামলার পর আরফি ও রাকিব নামে দুইজনকে পুলিশ আটক করলেও অটোমালিক সমিতির সভাপতির জিম্মায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।ঝালকাঠি থানায় ওসি খলিলুর রহমান জানান, অটোচালককে হত্যার ঘটনায় তার স্ত্রী নুর নাহার বাদী হয়ে বুধবার সকালে মোস্তফা হাওলাদারসহ ১২ জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওসি তদন্ত প্রভাষ মল্লিক বলেন, আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্ট চলছে।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!