ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভাতিজিকে ব্লেড দিয়ে পুচিয়ে রক্তাক্ত জখম করার দায়ে চাচা গ্রেপ্তার

মোঃ রাসেল আহমেদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি।।

120

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ভাতিজি শান্তা আক্তার-(২৫)কে হাত-পা বেঁধে মারধোর শেষে ব্লেড দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে পুচিয়ে রক্তাক্ত জখম করার দায়ে চাচা আলী মিয়া-(৩৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।মঙ্গলবার রাতে সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের শিলাউর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এখনো শান্তা আক্তারের অপর দুই চাচা হুমায়ূন মিয়া-(৪০) ও রতন মিয়া-(৫০) কে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

আহত শান্তা আক্তার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।আহত শান্তা আক্তার সুলতানপুর ইউনিয়নের শিলাউর গ্রামের আলগাবাড়ির আইয়ুব মিয়ার কন্যা ও একই গ্রামের পাশাপাশি বাড়ির রাজমিস্ত্রী রাসেল মিয়ার স্ত্রী। সে দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জননী।এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবদুর রহিম বলেন, গত রোববার সন্ধ্যার দিকে শান্তা আক্তার ডাক্তার দেখানোর জন্য নিজ বাড়ি থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আসার সময় তার চাচারা তাকে আটক করে।

পরে তার হাত-পা বেঁধে মারধোর শেষে ব্লেড দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে পুচিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এই ঘটনার শান্তার মা রোশনা আক্তার বাদী হয়ে শান্তার তিন চাচা হুমায়ূন মিয়া, আলী মিয়া ও রতন মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ মঙ্গলবার রাতে মামলার আসামী আলী মিয়াকে গ্রেপ্তার করে। বুধবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। তিনি বলেন, বাকী আসামীদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!