মুরাদনগরে ইউপি নির্বাচন চেয়ারম্যান পদে ১২ জনসহ ৯৫ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা

সাজ্জাদ হোসেন, মুরাদনগর।।

১৭১

কুমিল্লার মুরাদনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১২ জন, নারী সদস্য পদে ১৬ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৫৯ জন এবং শ্রীকাইল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ৮ জনসহ মোট ৯৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে। নির্বাচনকে ঘিরে গত ৩ দিন যাবত মুরাদনগর উপজেলা সদরে ছিল উৎসবমূখর পরিবেশ। আগামী ১৫ জুন এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামীলীগ মনোনীত কাজী মো: তুফরীজ এটন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত দিদারুল আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ মাসুদ, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন, ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, জয়নাল আবেদীন, বশিরুল ইসলাম মোল্লা, ফখরুল ইসলাম, আল-কাউছার, হাজী রশিদ, তসলিম আহম্মেদ ও নাজমুস সাকিব।

সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডে ৬ জন, ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে ৫ জন, ৬, ৭ ও ৯নং ওয়ার্ডে ৫ জনসহ ১৬ জন প্রার্থী রয়েছে। সাধারণ সদস্য ১নং ওয়ার্ডে ৮ জন, ২নং ওয়ার্ডে ১০ জন, ৩নং ওয়ার্ডে ৮ জন, ৪নং ওয়ার্ডে ৪ জন, ৫নং ওয়ার্ডে ৫ জন, ৬নং ওয়ার্ডে ৫ জন, ৭নং ওয়ার্ডে ৫ জন, ৮নং ওয়ার্ডে ৭ জন ও ৯নং ওয়ার্ডে ৭ জনসহ মোট ৫৯ জন প্রার্থী রয়েছে। অপর দিকে শ্রীকাইল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে মোট ৮ জন প্রার্থী মনোনয়পত্র দাখিল করেন।

এ দিকে মুরাদনগর সদর ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ১১টি কেন্দ্রে ২৮ হাজার ৪৩৪ জন ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে মহিলা ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৬১৪ জন। অন্য দিকে শ্রীকাইল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের একটি কেন্দ্রে ৩ হাজার ৪৪৫ জন ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে মহিলা ভোটার সংখ্যা ১ হাজার ৭১৫ জন।

উল্লেখ্য, প্রস্তাবিত পৌরসভার সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় মুরাদনগর সদর ইউপি নির্বাচন বন্ধ ছিল। ৩ বার দিন-তারিখ হয়েও মহামান্য হাইকোর্টের আদেশের কারণে ভোট গ্রহন সম্ভব হয়নি। অপর দিকে গত ৩১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে শ্রীকাইল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের নব-নির্বাচিত সাধারণ সদস্য জলিল মিয়া শপথের আগের দিন মারা যাওয়ায় এ পদটি শূন্য হয়।

এ ব্যাপারে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাসুদ আহমদ শিকদার বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য আমরা সার্বিক ভাবে প্রস্তুত রয়েছি। নির্বাচন কমিশনও একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্পন্ন করতে সর্বোচ্চ তৎপর। তিনি সাফ জানিয়েছেন, আচরণ বিধি নির্বাচনী আইনের একটি অংশ। সকল প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরণ বিধি মানতে হবে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!