রুবেল রাজ তিতাস উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক নির্বাচিত

হালিম সৈকত, কুমিল্লা।।

30
মোঃ রুবেল আহমেদ খান রাজ। মাছিমপুর গ্রামের সন্তান। ‍ছোটবেলা থেকেই বিএনপির রাজনীতি তার পছন্দ। পারিবারিক রাজনীতি থেকেই তার বিএনপির রাজনীতির প্রতি দুর্বলতা। পরিবারের সবাই বিএনপি সমর্থক। তাই সে নিজেও বিএনপিকে পছন্দ করে। বর্তমানে সে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল তিতাস উপজেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক নির্বাচিত হয়েছে।
এর আগে সে ৫ নং কলাকান্দি ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছে দীর্ঘদিন । নিজ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেছে হিউম্যান ব্লাড ডোনার ফাউন্ডেশন। একজন তরুণ ব্যবসায়ী হিসেবে রাজনীতিতে তাকে স্বাগত জানিয়েছেন মাছিমপুর গ্রামের বিভিন্ন স্তরের মানুষ। তিতাস উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক নির্বাচিত হওয়ায় তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিতাস উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম ওসমান গণি ভূইয়া, ফ্রেন্ডস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক হালিম সৈকত, সাধারণ সম্পাদক রবিউল আউয়াল রবি, বিএনপি নেতা হাসান মাহমুদ অপু, আলমগীর হোসেন ও রিপন হাসান নিপু প্রমুখ।
এক প্রশ্নের জবাবে রুবেল রাজ বলেন, আমি বিগত ১০ বছর ধরে বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত। আমার রক্তের সাথে মিশে আছে বিএনপি। আমি ছোটবেলা থেকে দেখেছি আমার ফ্যামিলি বিএনপির সাথে যুক্ত। আমি শহিদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে দেখিনি কিন্তু আমি দেখেছি বেগম খালেদা জিয়াকে, দেখেছি তারেক রহমানকে। আমার কাছে ভালো লাগার আরেক নাম বিএনপি তাই আমি বিএনপি করি।
আমার রাজনীতি করার আরেকটি কারণ হচ্ছে মানুষের পাশে থাকা। মানুষের বিপদে আপদে সাহায্য করা। সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে এসে দাঁড়ানো আর যারা টাকার জন্য চিকিৎসা করাতে পারছেন না, তাদের পাশে থেকে সহায়তা করা। সর্বোপুরি সমাজের জন্য কিছু করতে চাই। ছোট বেলা থেকেই মনে সুপ্ত বাসনা সমাজের জন্য কিছু করব। বিশেষ করে এতিমদের জন্য। কারণ ছোটবেলা আমি একটি মাদসায় পড়াশোনা করতে গিয়ে দেখেছি এতিমদের কত কষ্ট? আল্লাহ যদি আমাকে কোন দিন তৌফিক দান করে আমি তাদের জন্য কাজ করব এবং তাদের পাশে থেকে তাদের কষ্ট গুলো লাগব করার চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ।
সবশেষে আমি একটি কথাই বলতে চাই মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই এবং সেই সাথে তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাই।
আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!