সন্তানদের অনুপ্রেরণায় নবম শ্রেণিতে পরিক্ষা দিলেন মহিলা কাউন্সিলর

নীলফামারী প্রতিনিধি।।

৭২৬

শিক্ষার কোন শেষ নেই যেকোনো বয়সে মানুষ শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে, করতে পারে লেখা পড়া। সন্তান দের কাছে অনুপ্রেরণা পেয়ে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে সমাপনি পরীক্ষা দিয়েছেন সৈয়দপুর পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর।

এতেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে বিষয়টি, যা অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে স্বাক্ষর জ্ঞান না থাকা কর্মজীবী মহিলাদের। নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ( মহিলা সংরক্ষিত) সাবিয়া সুলতানা ( সাবিয়া) বলেন লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ ছোটোবেলা থেকেই ছিল কিন্তু সংসারের দারিদ্রতা আমাকে পড়াশোনা করতে দেয়নি অষ্টম শ্রেণী পাস করেই আমার বিয়ে হয়ে যায় আমি আর পড়াশুনা করতে না পারলেও ছেলেমেয়েদের উচ্চশিক্ষিত করে তুলেছি।

আমার মা রাজিয়া সুলতানা এই ওয়ার্ডে তিনবার কাউন্সিলর ছিলেন , তার মৃত্যুর পর উপনির্বাচনে আমি নির্বাচিত হই , এবারও জনগণ ভোট দিয়ে আমাকে মহিলা সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর বানিয়েছে।

মানুষের ভালোবাসা আর সন্তানদের শিক্ষিত করে গড়ে তোলায় আমার সব কিছু পুরণ হলেও লেখা পড়া বেশী দূর না জানার কারনে আত্ন কষ্ট সব সময় তারা করে বেড়ায় আমাকে। সন্তানদের অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে আমাকে লেখা পড়া শেখার উৎসাহ।

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোড এর অধিনে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী হিসেবে সৈয়দপুর আসমতিয়া দাখিল ( ভকেশনাল) মাদ্রাসার পরীক্ষার্থী হিসেবে পরীক্ষা দিয়েছেন গফুরিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা পরিক্ষা কেন্দ্রে মহিলা কাউন্সিলর সাবিয়া সুলতানা।

এই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এ ভাইরাল হলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরী হয় জনমনে। এ ঘটনায় নতুন করে পড়াশুনার করার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে কর্মজীবী নারীদের। নীলফামারী মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকতা তার এ উদ্দোগ কে স্বাগত জানিয়েছে। সাবিয়া আক্তার শুধু সৈয়দপুর নয় দেশের অল্পশিক্ষিত জনপ্রতিনিধি দের জন্য একটি মডেল তাকে দেখে সকলেই প্রবলভাবে অনুপ্রাণিত হবে বলে মনে করছে সমাজের সুধী জনেরা।

আয়েশা আক্তার/অননিউজ24

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!