সাভারে শিশু বাচ্চার জন্য চুল বিক্রি করেও তোপের মুখে সেই মা

নাজমুল হুদা সাভার।।

76
সাভারে আঠার মাসের শিশু বাচ্চার জন্য দুধ কিনতে মাথার চুল বিক্রি করে দেওয়া ওই মা স্থানীয় আওয়ামীলীগ-যুবলীগ নেতাকর্মীদের তোপের মুখে রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার সকালে ব্যাংক কলোনী এলাকায় ওই ওই নারীর ভাড়া বাড়িতে গিয়েও সরেজমিনে এর সত্যতা খুজে পাওয়া গেছে।
এমনকি মঙ্গলবার রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাভার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আব্দুল্লাহ-আল মাহফুজ সাংবাদিকদের বলেন, তিনি নিজে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নারীর সাথে কথা বলে ও খোজ নিয়ে জানতে পেরেছেন শিশু বাচ্চার জন্য নিজের মাথার চুল কেটে বিক্রি করে দিয়েছেন। তাৎক্ষনিকভাবে উপজেলা প্রশাসন থেকে তাকে খাদ্য সহযোগীতা করা হয়েছে।
একই কথা বলেছেন সাংবাদিকদের সাভার উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজীব বলেন, তিনি খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে নারীর সাথে কথা বলে সত্যতা খুজে পেয়েছেন। তিনি নগদ টাকাসহ খাদ্য সহযোগীতা করেছেন।
ভুক্তোভোগী মা সাথী বেগম বলেন, অভাবের তাড়নায় করোনার লকডাউনের মধ্যেই নিজের শিশু বাচ্চার দুধ কেনার জন্য মায়ের মাথার চুল কেটে রাখে। পরে কয়েকদিন আগে ওই নারী স্থানীয় হকারের কাছে ১৮০ টাকায় সেই চুল বিক্রি করে সন্তানের জন্য দুধ ও এক কেজি চাল কিনে আনে।
প্রতিবেশী অপর ভাড়াটিয়া নারী বলেন, তিনি নিজেও অন্যের বাসায় কাজ করেন। তবে এই নারী দেড় মাস আগে এই বাড়িতে ভাড়া নিয়ে এখানে আসেন। তখন তার মাথায় চুল ছিল। কয়েকদিন আগে শিশু বাচ্চার জন্য দুধ কেনার জন্য ওই নারী মাথার চুল কেটে বিক্রি করেছেন তিনি নিজেও দেখেছেন বিষয়টি।
এদিকে এ খবর মঙ্গলবার রাতেই সামাজিক যোগাযোগ ও বিভিন্ন গণ্যমাধমে প্রচার করা হয়। খবর পেয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ী ওবায়দুর রহমান অভি এক বস্তা চাল, ডাল, তেলসহ প্রায় দেড় মাসের বাজার পৌছে দেন। অন্যদিকে সহমর্মিতা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে পারভেজুর রহমান নামের এক যুবক শিশু খাদ্যসহ এক মাসের খাবার পৌছে দেয়। পরে রাতেই স্থানীয় সাভার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আব্দুলাহ-আল মাহফুজ এবং সাভার উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজীবসহ একাধিক নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নারীর পরিবারকে আর্থিক ও খাদ্য সহযোগীতা করেন।
এদিকে এ খবর দেশের অধিকাংশ গণমাধ্যমে প্রচার হওয়ার পর রাতে যুবলীগ নেতা ফারুক হাসান তুহিন ঘটনাস্থলে পৌছিয়ে ওই নারীকে আর্থিক সহযোগীতাও করে আসেন।
তবে বুধবার সকাল থেকে সাভারের বিভিন্ন আওয়ামীলীগ নেতারা ঘটনাটি মিথ্যে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করতে থাকে।
সকালে সরেজমিনে ওই নারীর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, স্থানীয় বিভিন্ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা চুল বিক্রি করে দেওয়া মা ও ওই নারী স্বামীকে ঘটনাটি মিথ্যে সাজানোর অপচেষ্টা চালানো হয়। তারা ওই নারীকে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করার চেষ্টা করেন।
ভুক্তোভোগী নারী অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামীলীগের নেতারা এসে তাকে বলেন, তুমি তিন মাস আগে চুল কেটেছো এখন মিথ্যে বলছো কেন বলে ফোর্স করে।
মাসুদ চৌধুরী নামের আরেক নেতা তাকে বলেন, দেড় মাস আগে চুল কেটেছো ওই সময় তো কোন করোনা ছিলো না। তুমি মিথ্যে কথা বলে মানুষের টাকা খাওয়ার জন্য এই রকম করেছো। এছাড়াও তোমার কিছু যদি লাগে তাহলে তারা এসে দিয়ে যাবে। এছাড়াও তোমাকে সতর্ক করে দেওয়া হলো এ বিষয়ে কাউকে আর কিছু বলবে না। সবাইকে তাকে নজরদারী করে রাখার জন্য বলেছে বলেও তিনি জানান। এছাড়াও তিনি সকাল থেকেই এতো লোকজনের বিভিন্ন কথায় তিনি তোপের মুখে রয়েছেন বলেও জানান।
এ ব্যাপারে কেন্দ্রিয় যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিনের , শুরুতেই ঘটনাটি ষড়যন্ত্র এবং উদ্দেশ্যপ্রনোদিত মনে হয়েছে। বুধবার তিনি সেখানে গিয়ে জানতে পারেন দেড় মাস আগের ঘটনা।
সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসার পারভেজুর রহমান জানান, করোনা সংকটে এভাবে ঘটনা প্রচার করা উদ্দেশ্যপ্রনোদিত।
সাভার পৌর মেয়র আব্দুল গণি বলেছেন, পুরো ঘটনা উদ্দেশ্যপ্রনোদিত। ওই মহিলা কারো কাছে ত্রাণের জন্য যাননি।
আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!