সোনারগাঁয়ে ব্যবসায়ীর দোকান দখল করে উল্টো মিথ্যা চুরির অভিযোগ দিয়ে হয়রানী

নজরুল ইসলাম শুভ, সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ)।।

৭৬

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে এক ব্যবসায়ীর দোকান দখল করে উল্টো ওই ব্যবসায়ীকে মিথ্যা চুরির মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ ওঠেছে। উপজেলার বারদী বাজার এলাকা এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী মুসা মোল্লা বাদি হয়ে রোববার ( ৩ জুলাই) সোনারগাঁ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে।

এদিকে ওই ব্যবসায়ী, তার পরিবার ও দোকান কর্মচারীদের বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় ফাসিঁয়ে দিবে বলে হুমকি দেয় প্রতিপক্ষের লোকজন। সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা অভিযোগ থেকে জানা যায়, উপজেলার নোয়াগাঁ ইউনিয়নের ভিটি পরমেশ্বরদী গ্রামে মোবাইল এর এক্সসরিস ব্যবসায়ী মুসা মোল্লা তার পৈত্রিকসূত্রে পাওয়া বারদী মৌজায় ২.২০ শতাংশ সম্পত্তিতে একটি দোকান নির্মান করে ভোগ করে আসছিলেন। ওই দোকানটি গত ২ বছর এর জন্য মুসা মোল্লার মিজানুর রহমান রুবেলের নিকট ভাড়া দেয়। রুবেল ওই দোকানের জায়গাটি মিথ্যা মামলা করে আত্মৎসাতের পায়তারা করে। দুই বছরের চুক্তি শেষ হয়ে গেলে মুসা মোল্লা দোকানটি ছেড়ে দিতে বললে রুবেল নানা তালবাহানা করে। এ নিয়ে মুসা মোল্লা এলাকার গন্যমান্য ও থানায় অভিযোগ করলে সম্প্রতি উভয় পক্ষে কাগজপত্রাদী দেখে গন্যমান্যরা মিমাংসা করে দেন। গন্যমান্য ব্যক্তিরা ওই দোকান ছেড়ে দিতে বলেন রুবেলকে। এবং যার যার হিৎসা অনুযায়ী ভোগ দখল করবে বলে সকলেই অঙ্গিকার করেন।

এমনঅবস্থায় গত ১ জুলাই শুক্রবার স্থানীয় সার্ভেয়ার এ মাধ্যমে মাপঝোপ করে জায়গা বুঝে পেয়ে মুসা মোল্লা তার নিজের দোকানঘরটি তালাবদ্ধ করে রাখে। শুক্রবার রাতেই মিজানুর রহমান রুবেল,তার ভাই মাজহারুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন মোল্লা, হৃদয় মোল্লাসহ আরো কয়েকজনকে নিয়ে দোকান এর টিন কেটে দোকানের যাবতীয় মালামাল সরিয়ে নেয়। পরে উল্টো মুসা মোল্লার বিরুদ্ধে ওই দোকানে চুরির অভিযোগ দেয়। এ নিয়ে মুসা মোল্লা স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বিয়য়টি অবহিত করলে চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান বাবুল ও প্যানেল চেয়ারম্যান আমিন হোসেন গত শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলে দোকানে কোন চুরি ঘটনার অভিযোগের কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি বলে জানান।

মুসা মোল্লা বলেন, তারা পরলোভী, দাঙ্গাবাজ ও খারাপ প্রকৃতি। তারা আমার দোকান দখল করে নেওয়ার পায়তারা করছে। রুবেল নিজেই চুরির ঘটনা সাজিয়ে উল্টো আমার বিরুদ্ধে মিথ্যার চুরির অভিযোগ করে আমাকে ফাঁসানোর পায়তারা করছে। এ বিষয়ে স্থানীয়কে চেয়ারম্যানকে জানালে তারা সরজমিনে গিয়ে চুরির কোর সত্যতা পায় নি। তারা আমাকে, আমার পরিবার ও আমার দোকানের কর্মচারীদের বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় ফাসিয়ে দিবে বলে হুমকি দিয়ে আসছে। এ ঘটনায় গতকাল রোববার সোনারগাঁ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি।

অভিযুক্ত মিজানুর রহমান রুবেল বলেন, আমার দোকানের সকল মালামাল মুসা মোল্লা ও তার লোকজন চুরি করে নিয়ে যায়। আমার দোকানের মালামাল সরাতে সময় দেয় নি মুসা মোল্লা। তালাবদ্ধ করে রাখে।

স্থানীয় বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান বাবুল ও প্যানেল চেয়ারম্যান আমিন হোসেন জানান, এ বিষয়ে আমরা বারদী বাজার দোকানে সরজমিনে দিয়ে চুরির অভিযোগের কোন সত্যতা পাওয়া যায় নি। এ জায়গা নিয়ে সার্ভেয়ার এ মাধ্যমে যার যার হিস্যা মতে ভোগ দখল করে খাবে বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, থানায় একটি অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয় হবে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!