সোনারগাঁয়ে সরকারী জায়গা দখল করে দোকান নির্মাণের অভিযোগ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে

নজরুল ইসলাম শুভ, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ)।।

৯৬

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে সরকারী জায়গা দখল করে অবৈধভাবে দোকান নির্মাণের অভিযোগ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। গত কয়েকদিন ধরে উপজেলার পরমেশ্বরদী বাস ট্যান্ড এলাকায় কয়েকটি বড় আকৃতির গাছ কেটে পাকা খুঁটি ও বাঁশ দিয়ে এ দোকানপাট নির্মাণ করার অভিযোগ উঠে। স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমানের যোগসাজসে এ দোকান নির্মাণ করা হচ্ছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। এর আগেও অনৈতিক সুবিধা নিয়ে ভূমি কর্মকর্তার কয়েকজন প্রভাবশালী সরকারী জায়গা দখল করে দোকান নির্মাণ করেন। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার বারদি ইউনিয়নের পরমেশ্বরদী পুরান বাস ট্যান্ড এলাকায় নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য মনিরুজ্জামান মনির সরকারি জায়গা দখল করে দোকান পাট নির্মাণ করেন। এ দোকান পাট নির্মাণের ফলে ওই এলাকায় প্রতিদিন যানজট সৃষ্টি হবে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বারদি বাজারের পুরাতন ব্রীজের দক্ষিন পাশে সরকারি সম্পত্তি বিএনপি নেতা আব্দুল জব্বার ও উত্তর পার্শ্বে কবির হোসেন, ইমরান, শামীম ও মাসুম মোল্লা সরকারী জায়গা দখল করে দোকান নির্মাণ করেন। এছাড়াও নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য মনির হোসেন একটি অংশ দখল করেছেন। দখল করা জায়গায় তার দোকানপাট নির্মানাধীন। এবিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন নিরব ভূমিকায় রয়েছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, মনির মেম্বার কোন প্রকার লিজ ছাড়াই সরকারী সম্পত্তি ও নদীর জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মাণ করছেন। দোকান ঘর নির্মাণ হলে এ অঞ্চল যানজটের সৃষ্টি হবে। এছাড়াও তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূইয়ার প্রভাবে বিভিন্ন স্থানে জায়গা দখল ও সরকারী গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে কেউ প্রতিবাদ করলেই হামলা ও মামলার ভয় দেখান।

এলাকাবাসীর আরো অভিযোগ, পরমেশ্বরদী পুরাতন ব্রীজ এলাকা দখলদাড়িত্বের রামরাজত্ব চলছে। এ এলাকার পরিত্যক্ত সকল জায়গা প্রভাবশালীরা দখল করে নিয়ে যাচ্ছেন। স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা, চেয়ারম্যান, ভূমি কর্মকর্তাদের যোগসাজসে প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় দখলে নিয়ে নিচ্ছে। এর আগেও ওই এলাকায় কয়েকটি জায়গা ভূমি কর্মকর্তাকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করে দখল করেছেন।
নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সামসুল আলম সামসু জানান, রাতের আধারে কতিপয় ব্যাক্তি কয়েকটি গাছ কেটে দোকান নির্মাণ করছেন অভিযোগ পেয়ে প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। প্রশাসনের এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়টি অজানা।

অভিযুক্ত নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মনিরুজ্জামান মনির জানান, জায়গা লিজের জন্য আবেদন করা হয়েছে। এখানে আওয়ামীলীগের কার্যালয় হবে। আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের জায়গা আপনার নামে আবেদন কেন ? এমন প্রশ্নের জাবাবে তিনি এড়িয়ে যান।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, দোকানপাট নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আমার নাম ব্যবহার করে কেউ অপকর্ম করলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ ইব্রাহিম মিয়া জানান, খবর পেয়ে দোকান নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হয়েছে। ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার যোগসাজসের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!