স্পন্সর খুঁজে খুঁজে হয়রান পাকিস্তান

অনলাইন ডেস্ক ।।

45

করোনাভাইরাসের লকডাউনের পর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে পুনরায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চলেছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল। তিন টেস্ট ও সমানসংখ্যক টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য এরই মধ্যে ইংল্যান্ডে পৌঁছে গেছে পাকিস্তান প্রায় ৩৫ সদস্যের বিশাল বহর।

তবে সিরিজ শুরুর আগে তারা পড়েছে অন্যরকম এক অসুবিধায়। কোনভাবেই জাতীয় দলের জার্সির স্পন্সর খুঁজে পাচ্ছে না তারা। যার ফলে ইংল্যান্ডে পাকিস্তান দলের অনুশীলন জার্সিতে দেখা যাচ্ছে কোন কোম্পানির লোগো নেই। এ নিয়ে এক বাড়তি ঝামেলায়ই পড়েছে তারা।

পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সবশেষ স্পন্সর ছিলো কোমল পানীয় প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান পেপসি। তাদের সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার পর করোনাভাইরাসের কারণে নতুন স্পন্সর নিতে পারেনি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এখন চলে এসেছে ইংল্যান্ড সিরিজ। নতুন স্পন্সর না পেলে লোগোবিহীন জার্সি নিয়েই খেলতে হবে পাকিস্তানকে।

যদিও স্পন্সর যে একেবারেই পায়নি পিসিবি, এমনটা নয়। শুধুমাত্র একটি প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এসেছে পাকিস্তান দলের স্পন্সর হওয়ার জন্য। তবে তাদের প্রস্তাবিত অর্থের পরিমাণ আগের চুক্তি অর্থাৎ পেপসির চেয়ে মাত্র ৩০ শতাংশ। নতুন চুক্তিতে পিসিবি যেখানে আগের চেয়ে বেশি পাওয়ার আশা করছিল, সেখানে প্রস্তাব পেয়ে আগের অর্ধেকেরও কম। তাই এ প্রস্তাবে আগায়নি দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

পিসিবির মার্কেটিং ডিপার্টমেন্ট থেকে এমন স্পন্সর না পাওয়ার কারণ হিসেবে করোনাভাইরাস মহামারীর কথাই উল্লেখ করা হয়েছে। অবশ্য এটিকে স্রেফ এক অজুহাত বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা। কেননা করোনাভাইরাস আসার অনেক আগে থেকেই পাকিস্তানের ঘরোয়া ক্রিকেটে নেই কোন স্পন্সর। সব খরচ করে সরাসরি পিসিবিই।

এবার জাতীয় দলের ক্ষেত্রেও এমনটা হবে কি না তা সময়ই বলে দেবে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শুরুর সম্ভাব্য তারিখ আগামী ৫ আগস্ট। অর্থাৎ এখনও প্রায় এক মাস সময় রয়েছে পিসিবির হাতে। এ সময়ের স্পন্সর খুঁজে না পেলে করোনা লকডাউন পরবর্তী প্রথম সিরিজটি লোগোবিহীন জার্সিতে খেলতে হবে বাবর আজম, আজহার আলীদের।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!