স্বামীর কাছে যেসব কথা না বলাই ভালো

অনলাইন ডেক্স।।

114
সংসারে শান্তি বজায় রাখতে প্রচেষ্টা থাকতে হয় সংসারের প্রতিটি সদস্যেরই। এই শান্তি বজায় রাখার জন্য কিছু কিছু কথা চেপে যাওয়াই ভালো। আপনার স্বামী আপনার সবচেয়ে ভালো বন্ধু হতেই পারেন, তার মানে কিন্তু এই নয় যে সব সময় সব কথা তাকে বলে দেবেন। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অন্যের গোপনীয়তার বিষয়টিও খেয়াল রাখতে হয়। কোন কথাগুলো আপনাদের সম্পর্ক আরও সুন্দর রাখতে সাহায্য করবে, তা জানুন। কিছু বিষয় আছে যা স্বামীকে না বলাই ভালো। জেনে নিন-
শাশুড়ির সমালোচনা করবেন না: শ্বশুর-শাশুড়ি যেমনই হোক, তাদের সমালোচনা করতে যাবেন না। কারণ মা-বাবা প্রত্যেকেরই দুর্বলতার জায়গা। তাই আপনি যদি স্বামীর কাছে তার মা-বাবার নামে সমালোচনা করেন, সেটি তিনি মোটেও ভালোভাবে নেবেন না। সন্তানের চোখে মা-বাবার কোনো ভুলই ধরা পড়ে না বললে চলে। তাই তাদের কোনো ভুল থাকলেও তা আপনার স্বামীকে বোঝানো সম্ভব হবে না। তাই আপনি যদি তার মা-বাবা নিয়ে এটা-সেটা বলেন, তাহলে সংসারে অশান্তি আসতে সময় লাগবে না। তাই বলে সবকিছু মুখ বুজে সহ্য করে যাবেন, তা কিন্তু নয়। বরং হালকাভাবে আপনার সমস্যার কথা স্বামীর কাছে খুলে বলতে পারেন। আপনি যে অশান্তির পক্ষে নন, তাও বলুন।
নেতিবাচক কথা নয়: বরের পরিবারের সবার সঙ্গে যে তার ভালো সম্পর্ক থাকবে, এমনটা নাও হতে পারে। তাই বলে তাদের সম্পর্কে নেতিবাচক কথা বলতে যাবেন না। যদি সেই মানুষগুলোকে আপনি পছন্দ নাও করেন, তবু কটু কথা বলতে যাবেন না। প্রয়োজনে কৌশলে এড়িয়ে চলুন। অথবা চেষ্টা করুন যাতে স্বামীর সঙ্গে তাদের সম্পর্কের উন্নতি হয়। কিন্তু ভুলেও নেতিবাচক চিন্তা মনে লালন করবেন না। তাদের সম্পর্কে বরের কাছে গিয়ে কান ভারীও করবেন না।
গোপন কথা গোপনই রাখুন: স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের ভেতর স্বচ্ছতা থাকা সবচেয়ে জরুরি। তাই বলে প্রতিটি কথাই যে স্বামীকে বলতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। আপনার কাছের কোনো বন্ধু তার কোনো গোপন কথা আপনার সঙ্গে শেয়ার করতেই পারেন। সেটি স্বামীকে বলার দরকার নেই। কারণ আপনার স্বামী যদি সেই গোপন কথাটি গোপন না রাখেন, তখন বন্ধুর সঙ্গে আপনার সম্পর্কে ফাটল ধরবে নিশ্চিত।
কিছু কথা না বলাই ভালো: স্বামীর যেকোনো বিষয়ে মতামত দেয়ার অধিকার রয়েছে আপনার। তবে কিছু কিছু বিষয় এড়িয়ে চলতে শিখুন। বিশেষ করে স্বামী কোথায় কত টাকা খরচ করেছেন তার খুঁটিনাটি হিসাব না নিলেও চলবে। বিয়ে করেছেন মানেই যে তিনি সব শখ আহলাদ বাদ দিয়ে টাকা জমাবেন, এমনটা কিন্তু নয়। তবে খেয়াল রাখুন, বাড়তি খরচ যেন বেশি না হয়।
অতীত নয়, মনোযোগ দিন বর্তমানে: স্বামীর প্রাক্তনকে আপনি সহ্য করতে পারবেন না, এটি খুবই স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু তার মানে এই নয় যে আপনি তার সম্পর্কে আজেবাজে মন্তব্য করতে পারবেন! কারণ প্রাক্তন হলেও একটা সময় তিনি আপনার স্বামীর প্রিয়জন ছিলেন। তাই তাকে না হোক, অন্তত স্বামীর সম্মানের দিকে তাকিয়ে তার প্রাক্তনকে নিয়ে কটুক্তি করা থেকে বিরত থাকুন। বরং বর্তমানটা কী করে দু’জনে মিলে রঙিন করা যায়, সেদিকে নজর দিন।
আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!