হিলিতে ১০বছরের এক শিশু ধর্ষনের স্বিকার, ২যুবকের বিরুদ্ধে মামলা

হিলি প্রতিনিধি।।

60

দিনাজপুরের হিলিতে ১০ বছরের এক শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় রবিউল ইসলাম ও মাসুদ রানা নামের দুই যুবকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে শিশুটির পিতা। এদিকে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে ধর্ষকের পক্ষ থেকে কিশোরীর পরিবারকে হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে বলে ওই কিশোরীর বাবা অভিযোগ করেছেন।

গত মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় হিলির দক্ষিণ বাসুদেবপুরের জিলাপিপট্টি এলাকায় এই ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটে। বুধবার বিকেলে শিশুটির পিতা বাদী হয়ে ওই দুজনকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত রবিউল ইসলাম হিলির দক্ষিন বাসুদেবপুর জিলাপিপট্টি গ্রামের আনসার আলীর ছেলে ও মাসুদ রানা একই গ্রামের বাসিন্দা।

এদিকে বিষয়টি মিমাংসায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে শিশুটির সাথে রবিউল ইসলামের বিয়ে দেওয়ার প্রস্তুতির কথাও জানা গেছে, তবে মোহরানা সংক্রান্ত জটিলতায় সেটিও ভেস্তে যায়। রবিউল ইসলাম ও মাসুদ এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী হিসাবে পরিচিত, তারা এলাকাতে যা খুশি তাই করে বেড়াচ্ছে। রবিউল ইসলাম দুই সন্তানের জনক, এর আগেও সে অনৈতিক কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

শিশুটির পিতা আজিজুল হক জানান, আমার মেয়ে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর শিক্ষার্থী। বর্তমানে করোনার কারনে স্কুল বন্ধ থাকায় সে বাড়িতেই অবস্থান করিতেছে। আমি পেশায় ভ্যান চালক ও আমার স্ত্রী অন্যের বাড়িতে ঝিঁয়ের কাজ করেন। প্রতিদিনের ন্যায় মেয়েকে গতকাল মঙ্গলবার সকালে বাড়িতে রেখে আমি ভ্যান নিয়ে কাজে চলে আসি ও তার মাও কাজে চলে যান। সকাল ১০টার টার দিকে আমার মেয়ে একই গ্রামের শের আলীর বাড়িতে কোরআন শিক্ষার জন্য যায়।

পড়া শেষে সকাল ১১টার দিকে বাড়িতে আসতে লাগলে পথে প্রতিবেশী মাসুদের সাথে দেখা হলে আমার মেয়েকে সে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে একটি ঘরে আটকে রাখে। এসময় ওই বাড়িতে পুর্ব থেকেই রবিউল ইসলাম অবস্থান করছিল। পরে মাসুদ ঘরের দরজায় বাহির থেকে তালা লাগিয়ে দিয়ে বাহিরে অবস্থান করতে থাকে। এসময় রবিউল ইসলাম জোরপুর্বক আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে। এসময় আমার মেয়ে চিৎকার করলে আশেপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে রবিউল ইসলাম ঘর থেকে বের হয়ে পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়দের নিকট থেকে জানতে পেরে দ্রত ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের কাছ থেকে ঘটনাটি শুনি। পরে বাড়িতে গেলে আমার মেয়ে পুরো বিষয়টি খুলে বলে। এই ঘটনায় কোন মামলা করা হলে পরিনাম ভালো হবেনা মর্মে আমাকে তাদের পক্ষ থেকে হুমকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে।হাকিমপুর থানার ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ জানান, এঘটনায় শিশুটির পিতা বাদী হয়ে দুজনকে অভিযুক্ত করে আজ বুধবার বিকেলে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে যাহার মামলা নং ১১।

ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি জানান। শিশুটিকে ডাক্তারি পরিক্ষার জন্য আগামীকাল সকালে দিনাজপুর এমরহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

আরো পড়ুনঃ
error: Content is protected !!