বুধবার, অক্টোবর ২৩ .
  • ৮ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রাম থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেস ওয়ের নির্মাণ কাজ শুরু

0

চট্টগ্রামের লালখান বাজার থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেস ওয়ের নির্মাণ কাজ শুরু হচ্ছে আগামী মাসেই। আর এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে বিশ্বমানের নগরের দিকে চট্টগ্রাম আরো একধাপ এগিয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা সিডিএ চেয়ারম্যানের। ব্যবসায়ী নেতাদের দাবি মিরসরাই ও আনোয়ারার ইকোনোমিক জোনগুলো চালু হলে বিশ্বের অনেক গুরুত্ত্বপূর্ণ নগরীর তালিকায় স্থান করে নেবে এই বন্দর নগরী। এদিকে এর নির্মান কাজ শুরুর আগে অবৈধ দখল উচ্ছেদ ও বিকল্প সড়ক চলাচলের উপযোগী করে তোলার দাবি জানিয়েছেন নগর পরিকল্পনাবিদরা।

২০১৩ সালে প্রথম উড়াল সড়কের যুগে প্রবেশ করে বন্দর নগরী চট্টগ্রাম। নগরীর কালামিয়া বাজার থেকে শুরু হয়ে বহদ্দারহাট মোড় ছাড়িয়ে প্রধান সড়কেই নামানো হয় প্রথম ফ্লাইওভারটি। এরই ধারাবাহিকতায় মুরাদপুর থেকে শুরু হয়ে লালখান বাজার ও কদমতলীতে আরো দুটি ফ্লাইওভার নির্মান করে সরকার। শুরুতে এসব ফ্লাইওভারের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন উঠলেও এখন প্রকল্পগুলোর ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে নগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থায়।

এবার লালখানবাজার থেকে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত ১৮ কিলোমিটার লম্বা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মানের সব প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করেছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ সিডিএ। ৩ হাজার ২৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে বিশাল এই প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শুরু হচ্ছে আগামী মাসেই।

নবনির্মিত এই এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নিচে থাকবে আগ্রাবাদ, ইপিজেড, বন্দর ও কাস্টমসের মতো ব্যস্ততম এলাকাগুলো। তাই এই প্রকল্প বাস্তবায়নের আগে বিকল্প সড়ক প্রস্তুত করার পরামর্শ দিয়েছেন এই নগর পরিকল্পনাবিদ।

ব্যবসায়ী নেতারা বলছেন বন্দর নগরী চট্টগ্রামকে ঘিরে সরকারের যে বড় উন্নয়ন পরিকল্পনা রয়েছে তা বাস্তবায়িত হলে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে দেশের অর্থনীতিতে।

২০১৮ সালের ১০ অক্টোবর একনেকে অনুমোদনের পর ওই বছরই ৩১ অক্টোবর এই প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর জমি অধিগ্রহণসহ দাফতরিক কাজ শেষে শুরু হতে যাচ্ছে বড় এই প্রকল্পের নির্মান কাজ। (ফুটেজ-১-২)

Share.

About Author

Leave A Reply