বুড়িচংয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলা- নারীসহ ৪ জন আহত

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

অন নিউজ রিপোর্টার।।

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল গ্রামে শুক্রবার সন্ধ্যায় পূর্ব বিরোধের জের এবং তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রবাসী ফুল মিয়ার নেতৃত্বে ৫-৬ জন রিক্সাচালক মফিজুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা সহ ৩-৪ জনের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে আহত করে। স্হানীয়রা তাদের আত্মচিৎকার শুনে তাদের উদ্ধার করে রাতে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করে।

স্হানীয় সূত্র ও আহত গৃহবধু জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার ষোলনল গ্রামের রিক্সাচালক মফিজুল ইসলাম এর দুই শ্যালক কুমিল্লা কোর্ট বাড়ির সালমান পুর এলাকা থেকে তার বাড়িতে বেড়াতে আসে এবং তার ঘরে বসে কথা বলে। এসময় একই বাড়ির মৃত এতিম আলীর প্রবাসী ফুল মিয়া মফিজুল ইসলাম এর দুই শ্যালক রিপন (২৬) ও স্বপন (২০) কে জিজ্ঞেস করেন তাদের পরিচয়। তারা পরিচয় দেওয়ার পর ও ফুল মিয়া উত্তেজিত হয়ে যায়। তখন মফিজুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা আক্তার (৩০) তার ভাইদের বলে তর্কবিতর্ক না চুপ থাকতে বলেন।

এক পর্যায় ফাতেমার শ্বশুর রফিকুল ইসলাম ফুল মওয়াকে বলে রিপন স্বপন আমার আত্মীয় এবং ছেলের শ্যালক, এনিয়ে মাতামাতি না করার জন্য নিষেধ করে। এর পর ফুল মিয়া ৫-৬ জনকে সঙ্গে নিয়ে গিয়ে তাদের প্রবেশ করে মফিজুল ইসলাম এর স্ত্রী ফাতেমা আক্তারের চুলের মুঠি ধরে মাটিতে ফেলে পেটে লাথি, কিল, ঘুষি,মুড়া মারে।

এসময় তার ভাইদের কে মার ধর করে আহত করে। এছাড়া ফাতেমার ভাই রিপন মিয়া ষোলনল গ্রামের রফিকুল ইসলামের মেয়ে ৩ বছর পূর্বে বিয়ে করে। ঘটনার খবর শুনে রিপনের স্ত্রীর ভাই বাদল মিয়া জিজ্ঞেস করলে তার উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। তাদের চিৎকার শুনে স্হানীয় লোকজন এগিয়ে এসে উদ্ধার করে এবং বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

অপর দিকে আহত ফাতেমা আক্তার জানান প্রবাসী ফুল মিয়া বিদেশ থেকে আসার পর থেকে তাকে করপ্রস্তাব দিয়ে আসত। এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার প্রতি ফুল মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে এঘটনা ঘটায়।
আহতরা হল ফাতেমা আক্তার, রিপন মিয়া, স্বপন মিয়া ও মোঃ বাদল মিয়া। এঘটনায় শনিবার রাতে বুড়িচং থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।

Share.

Leave A Reply