কুমিল্লা জুড়ে বুলবুলের প্রভাব; বিপাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার্থী-নিন্ম আয়ের মানুষ

6

মাহফুজ নান্টু, কুমিল্লা।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ঠ ঘূর্নিঝড় বুলবুলের কারনে শুক্রবার দুপুর থেকে কুমিল্লায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এতে করে বিপাকে পড়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আসা শিক্ষার্থীরা ও নিন্ম আয়ের মানুষজন বিপাকে পড়েছেন ।

শুক্রবার বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ঠ ঘূর্নিঝড় বুলবুলের কারনে সকাল থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে আকাশে বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করতে থাকে। পরে বেলা দু’টায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি শুরু হয়।

গুড়ি বৃষ্টির কারনে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বিপাকে পড়ে। দোকানের পাশে গাছের নিচে কেউবা হাতে ছাতা নিয়ে কেন্দ্রের বাইওে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। চাঁদপুর জেলা থেকে মেয়েকে নিয়ে এসেছেন আবদুল হাই। বাদুরতলা ফয়জুন্নেচ্ছো স্কুলে মেয়ের পরীক্ষা কেন্দ্র। পরীক্ষা শেষে যেন মেয়ে বাবাকে না দেখে চিন্তায় পড়ে যায় তাই বৃষ্টি উপক্ষো কওে দাড়িয়ে মেয়ের পরীক্ষা শেষ হবার প্রহর গুনছিলেন আবদুল হাই। সরকারী কলেজ কেন্দ্রেতেও একই অবস্থা ছিলো। অভিভাবকদেও দীর্ঘ সারি। কারো হাতে ছাতা কারো বা মাথায় পলিথিন। কাক ভেজা হয়ে অপেক্ষা করছেন সন্তানের পরীক্ষা শেষ হবার।

এদিকে নগর কুমিল্লার ব্যস্ততম এলাকা কান্দিরপাড় ও আশেপাশের এলাকায় গিয়ে দেখা যায়,ফুটপাতে ফেরীওয়ালাদের হাকডাক নেই। ব্যবসা প্রতিষ্ঠা দোকানপাট বন্ধ। টাউনহলেরভেতর চটপটি,হালিম ফুচকা বিক্রেতাসহ চায়ের টং দোকানগুলো পলিথিন দিয়ে মোড়ানো রয়েছে। গুড়ি বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েছেন নিন্ম আয়ের মানুষজন।

এদিকে ভিক্টোরিয়া কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শাখা ও লিবার্টি চত্বরে গিয়ে দেখা যায় চা দোকানীরা বিরস বদনে বসে আছেন। ফুটপাতে হকার ও মুচিদের আনাগোনা নেই। ফুচকা বিক্রেতা আনিস দোকান খুলে বসলেও দু ঘন্টায় মাত্র দু’জন কাস্টমার এসেছে। ফুচকা বিক্রেতা আনিস জানায় কার্তিকের এমন বৃষ্টি বড় লোকদেও জন্য আমাদের পেটে বৃষ্টির লাথি বড় কষ্টের বলে দীর্ঘ নি:শ্বাস ফেলে আনিস।

কুমিল্লা আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক ইসমাইল হোসেন জানান, ঘূর্নিঝড় বুলবুলের প্রভাবে কুমিল্লায় ঝড়ো হাওয়া বা বজ্রসহ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে আজ (শনিবার) সারাদিন বৃষ্টি হতে পারে।

আরো পড়ুন