কুমিল্লায় শেখ রাসেল সংসদ সভাপতির উপর শিবিরের হামলা

ব্রাক্ষণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি।।

87
ফেইজবুক স্টেটাসকে কেন্দ্র করে কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদের সভাপতি হৃদয়ের উপর সন্ত্রাসী হামলা করেছে উপজেলা শিবিরের সাবেক সভাপতি ওমর সানি ও তার সহযোগীরা।
এব্যাপারে হৃদয়ের পিতা বাদী হয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় দ্জুন নামীয় ও অজ্ঞাত ১২ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নের্তৃবৃন্দরা।
মামলার এজাহার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলা শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদের সভাপতি ব্রাহ্মণপাড়া সদর গ্রামের মোঃ কামাল হোসেনের ছেলে মোঃ শফিকুল ইসলাম হৃদয়(২২) এর সাথে উপজেলা সদরের দীর্ঘভথমি গ্রামের শফিকুল ইসলাম মেম্বারের ছেলে উপজেলা শিবিরের সাবেক সভাপতি ওমর সানির ফেইজবুকে বিভিন্ন স্টেটাসকে নিয়ে মন-মালিন্নতা চলে আসছিল।
এ বিষয়কে কেন্দ্র করে গত সোমবার রাতে ব্রাহ্মণপাড়া ভগবান সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ব্যাটমিন্টন ফাইনাল খেলা চলাকালিন হৃদয় মাঠে অবস্থান করা কালিন ওমর সানি কথা আছে বলে তাকে ডেকে পুকুর পারে নিয়ে যায়। পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ওমর সানি প্রকাশ ওমর ফারুক (২৫) ও তার ভাই শিবির কর্মী মোঃ রাসেল (৩৫)সহ ১০/১২ যুবক হৃদয়ের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।
তারা তাকে কিল-ঘুষি-লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দেয় এবং তাকে প্রানে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে তার ডান হাতের বাহুতে ইনজেকশান পুশ করে। হৃদয় অজ্ঞান হয়ে গেলে তাকে মৃত ভেবে হামলাকারীরা সেখান থেকে চলে যায়। রাত সারে ১২ টায় বাজারের নৈশ প্রহরী মোঃ হাশেম হৃদয়কে মাটিতে পরে থাকতে দেখে লোকজনের সহায়তায় প্রথমে তাকে মধুমতি হাসপাতাল ও পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে হৃদয় সেখানে চিকিৎসাধীন আছে।
এ ঘটনায় তার পিতা কামাল হোসেন বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় ওমর সানি ও তার ভাই রাসেলসহ অজ্ঞাত ১২ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে বুধবার উপজেলা আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নের্তৃবৃন্দদের উদ্দোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা আওয়ামীলীগ অফিসের সামনে এসে বিক্ষোভ সমাবেশ করে।
তারা দ্রুততম সময়ের মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে কঠিন বিচার করার আহবান জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: মনিরুল হক ও জমির হোসেন ঠিকাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম পুলিশ, আবুল কাশেম মেম্বার, আবদুল জলিল মেম্বার, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জহিরুল হক ঠিকাদার, বিআরডিবি চেয়ারম্যান মাসুদ আলী হায়দার, যুবলীগ নেতা আলাউদ্দিন রিপন, আলী আহাম্মদ মেম্বার, ফারুক আহাম্মদ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন সরকার, সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন, শ্রমিকলীগের সভাপতি মো: আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গাজী আবদুল হান্নান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক ফোরকান আহাম্মদ সবুজ, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান শরিফ, সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আবদুস সাত্তার, উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য সচিব এমদাদুল হক বাপ্পী, যুগ্ম আহবায়ক আনোয়ার হোসেন মিশনসহ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন পর্য্যায়ের নের্তৃবৃন্দ।
আরো পড়ুনঃ