ঢাবি ক্যাম্পাস ছুঁয়ে গেছে ভালোবাসাময় বসন্তে

অনলাইন ডেক্স।।

38
‘ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে গান…, আহা আজি এ বসন্তে…..এত ফুল ফোটে, এত বাঁশি বাজে…’ এমনই নানা গানে মুখরিত হয়ে উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণ।
বসন্ত বরণে ভোর থেকেই এখানে চলছে উৎসব, বাড়তি বিশেষণ যেন যোগ করছে ভালোবাসা দিবস। লাল-হলুদে পুরো এলাকাটাই যেন পরিণত হয়েছে ফুল বাগানে। পোশাকে, হাতে, মুখে সর্বত্র বাসন্তী রঙের ছোঁয়া। পথে পথে আলপনা।
বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, কার্জন হল কিংবা বটতলার ছায়ায় তরুণ-তরুণীরা প্রিয়জনের হাতে হাত রেখে বুনছেন ভবিষ্যতের সোনালি স্বপ্ন। সুন্দর সময় গুলোকে করছেন ক্যামেরায় বন্দী। চোখে চোখ রেখে বলছেন এ জীবন তোমারি তরে। কেউবা প্রিয়জনকে নিয়ে হাঁটতে হাঁটতে গাইছেন— এ পথ যদি শেষ না হয়…
শুক্রবার সকাল থেকেই রাস্তার দু’ধারে বসেছেন অনেক ফেরিওয়ালা। বিক্রি হচ্ছে ফুলের তৈরি গলার মালা, হাতের চুঁড়ি, মাথার ব্যান্ডসহ নানা অলংকারাদি।
রাজধানীর শাহবাগ, ঢাবির চারুকলা, বই মেলা, টিএসসি, পাবলিক লাইব্রেরি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নর-নারীরা বাসন্তী সাজে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছে।
আবহমান বাংলার প্রকৃতিতে আজ ফাগুনের ছোঁয়া, বকুল বৃক্ষের পাতার ফাঁক দিয়ে যেন উঁকি দিচ্ছে পূবের সূর্য। কোকিলের ডাক কানে না এলেও প্রকৃতির স্নিগ্ধতা জানিয়ে দিচ্ছে বদলে গেছে ঋতু। মাঘের শীতকে বিদায় জানিয়ে বসন্তের আগমনে নানা ফুলের গন্ধ বয়ে আনা ফাগুনের ঝিরিঝিরি হাওয়ায় যেন মন ভরে যায়।
চোখ জুড়িয়ে যায় বাগানের রক্তিম পলাশ, অশোক, শিমুল, কৃষ্ণচূড়া, কাঞ্চন পারিজাত, মাধবী আর গাঁদার ছোট ছোট ফুলের বর্ণিল রূপে। রাজধানীবাসীও তাদের নগর জীবনে আজ ভিন্নরূপ দেখে উচ্ছ্বসিত হয়। কোটি মানুষের কোলাহল পূর্ণ ঢাকা শহরে যানজটের বাড়তি কষ্ট যেন আজ ফাগুনের আগুনে পুড়ে ছাঁই।
‘এলিয়ে পড়েছে হাওয়া, ত্বকে কী চঞ্চল শিহরণ, মন যেন দুপুরের ঘূর্ণি-পাওয়া পাতা, ভালোবেসে অনন্ত সঙ্গীত স্রোতে পাক খেয়ে, মৃত্তিকার বুকে নিমজ্জিত হতে চায়। হায় কি আনন্দ জাগানিয়া।’
নির্মলেন্দু গুণের এমন বসন্ত বন্দনার পরও হয়তো আজ ফুলে ভরে ওঠেনি গাছ-গাছালি। কোকিলের ডাক হয়ত শোনা যায়নি। জলবায়ু পরিবর্তনের ধকল সামলাতে গিয়ে গাছগুলোতে হয়তো নতুন মুকুল আসেনি। তবুও আজ বসন্ত। আজ রঙ লেগেছে মনে। আজ রুক্ষ শীতকে বিদায় জানিয়ে নতুন পত্রপল্লবকে স্বাগত জানানোর দিন।
ঋতু বৈচিত্রের এ দেশে অন্যতম ঋতুরাজ বসন্ত। বুকে সেই ভালবাসাকে ধারণ করে শুক্রবার সকাল থেকেই রাজধানীসহ সারাদেশের মানুষ বসন্ত বরণে মেতেছে। কৃষ্ণচূড়া-পলাশের রাঙা হাসি, গান-নাচ ও ভালোবাসায় ঋতুরাজ বসন্তকে বরণ করে নিয়েছে সব বয়সের নারী-পুরুষ। রঙ্গিন সাজে বর্ণিল এ উৎসবে মেতেছে তরুণ-তরুণী, শিশুরা।
বকুলতলায় মূল মঞ্চে দলীয় নৃত্য, একক আবৃত্তি, সংগীতসহ বিভিন্ন আয়োজনে মাতোয়ারা হয়ে বসন্তের প্রথম সকাল। ভোর থেকেই শিক্ষক-শিক্ষার্থী, তরুণ-তরুণী ও হাজারো বাঙালির মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে চারুকলা প্রাঙ্গণ।
আরো পড়ুনঃ