কুমিল্লার বুড়িচংয়ে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

কুমিল্লা প্রতিনিধি।।

৮৮

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে রায়হান খান (১৫) নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার দুপুরে উপজেলার শংকুচাইল গ্রামে কয়েকজন যুবক লাঠিসোঁটা ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে রায়হানকে পিটিয়ে পাশের নদীতে ফেলে যায়। তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আনার পথে রায়হানের মৃত্যু হয়।

ওই কিশোর শংকুচাইল গ্রামের হাফিজ মেম্বারের বাড়ির সৌদি প্রবাসী গিয়াস খানের ছেলে এবং শংকুচাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রায়হান তার সহপাঠীদের সঙ্গে পূর্ণমতি সড়ক এলাকায় সেচ পাম্পে গোসল করছিল। এ সময় দুইটি মোটরসাইকেলে করে অজ্ঞাত কয়েকজন দুই মেয়েকে নিয়ে ওই সড়কে আসে। এক পর্যায়ে ওই যুবকরা তাদের সঙ্গে থাকা মেয়েদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতায় জড়ায়। এ দৃশ্য দেখে রায়হান ও তার সহপাঠীরা হাসাহাসি করে।

পরে ওই যুবকরা এসে রায়হানদের কাছে হাসাহাসির কারণ জানতে চায়। এ নিয়ে তাদের সঙ্গে রায়হানদের বাকবিতণ্ডা হয়। তখন ওই যুবকরা মোবাইল ফোনে খবর দিয়ে সহযোগীদের ডেকে এনে লাঠিসোঁটা ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে রায়হানকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে পাশের ঘুংগুর নদীতে ফেলে দেয়। এ সময় রায়হানের সহপাঠীরাও মারধরের শিকার হয়, তবে তারা সেখান থেকে পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়।

খবর পেয়ে স্থানীয়রা আহত রায়হানকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নিতে বলেন। ঢাকা নেয়ার পথে রায়হান মারা যায়।

রায়হানের মা রোজিনা আক্তার বলেন, ‘তুচ্ছ ঘটনায় আমার ছেলেকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমি আমার ছেলের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মারুফ রহমান বলেন, রাতেই ময়নাতদন্ত শেষে রায়হানের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এখন মামলা দায়ের করা হচ্ছে। অভিযুক্তদের আটকে অভিযান চলছে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!