ক্লোজ ডাউন প্রত্যাহার করে হিলি রেলস্টেশন চালু যাত্রীরা স্বস্তিতে

সালাহউদ্দিন বকুল, হিলি প্রতিনিধি।।

২৩৮

জনবল সংকটের অজুহাত দেখিয়ে বন্ধের দুদিন পর ক্লোজ ডাউন প্রত্যাহার করে আবারো দিনাজপুরের হিলি রেলওয়ে স্টেশনটিকে চালু করা হয়েছে। এতে করে ট্রেন প্লাটফর্মে দাড়ানোটিকিটসহ অন্যান্য সেবা আগের মতো মিলছে স্টেশনে। স্টেশনটি চালু হওয়ায় ও প্লাটফর্মে ট্রেন দাড়ানোয় স্বস্তি ফিরেছে যাত্রীদের মাঝে। স্থায়ীজনবল নিয়োগসহ ঢাকাগামী ট্রেনের যাত্রাবিরতীর দাবী জনপ্রতিনিধিসহ স্থানীয়দের।

শুক্রবার সকাল থেকে যথারিতী হিলি রেলস্টেশনে স্টপেজ থাকা সকল ট্রেন প্লাটফর্মে দাড়াচ্ছে। সকাল সাড়ে ৮টায় যথারিতী পার্বতীপুর থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেন এবং সকাল সোয়া ১০টায় রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা পার্বতীপুরগামী তিতুমির এক্সপ্রেস ট্রেনটি হিলি রেলস্টেশনে দাড়ায়। যথারিতী যাত্রি উঠানামা শেষে আবারো ট্রেন দুটি গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

স্থানীয় এলাকাবাসী রুহুল আমিন বলেন, জনবল সংকটের অজুহাতে গত ২০ অক্টোবর থেকে হিলি রেলস্টেশনটি ক্লোজ ডাউন ঘোষনা করা হয়। এর ফলে হিলি স্টেশনে স্টপেজ থাকা সকল ট্রেন প্লাটফর্মে না দাড়িয়ে ২নং লাইনে দাড়াতো। এতে করে অনেক উচু হওয়ায় ট্রেনে উঠতে বয়স্কসহ মহিলাদের খুব সমস্যা হতো তাদের কষ্ট করে ট্রেনে উঠানামা করতে হতো অনেক সময় ট্রেনে উঠতে গিয়ে অনেকে পড়ে যাচ্ছিল। গতদুদিনে না হলেও ২জন মানুষ ট্রেনে উঠতে গিয়ে পড়ে গিয়েছিল। আজ থেকে আবারো স্টেশনটি চালু হওয়ায় ট্রেন প্লাটফর্মে দাড়াচ্ছে এতে করে এই পথ দিয়ে চলাচলকারী মানুষের জন্য খুব সুবিধা হয়েছে। তবে স্টেশনটিতে যদি ঢাকাগামী কোন ট্রেনের স্টপেজ দেওয়া হয় তাহলে আমাদের এই অঞ্চলের মানুষের জন্য খুব ভালো হতো।

হিলি রেলস্টেশনের দায়ীত্বে নিয়োজিত চুক্তিভিত্তিক মাস্টার তপন কুমার চক্রবর্তী বলেন, জনবল সংকটের কারনে গত ২০ অক্টোবর থেকে হিলি রেলস্টেশনটিকে ক্লোজ ডাউন ঘোষনা করে কতৃপক্ষ। সেই সাথে আমাকেও যে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছিল সেটি বাতিল করে কর্তপক্ষ আমাকে বিদায় করে দেয়। এর ফলে হিলি রেলস্টেশনে স্টপেজকৃত ট্রেনগুলো প্লাটফর্মে না দাড়িয়ে ২নং লাইনে দাড়াতো। তবে আবারো কতৃপক্ষ বৃহস্পতিবার রাতে আমাকে জানিয়ে দেয় হিলি রেলস্টেশনের কার্যক্রম শুরু করে সেখানে দায়ীত্ব পালনের জন্য। সে মোতাবেক আমি আবারো হিলি রেলস্টেশনে দায়িত্ব পালন শুরু করেছি। আজ শুক্রবার সকাল থেকে হিলি রেলস্টেশনে স্টপেজ থাকা সকল ট্রেন যথারিতী আগের মতো প্লাটফর্মে দাড়াচ্ছে। তবে পয়েন্টসম্যান শর্ট মাত্র ১জন পয়েন্টসম্যান দিয়ে কার্যক্রম চালানো হচ্ছে যেখানে ৩জন থাকার কথা। তবে কর্তপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে তারা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন পয়েন্টসম্যান দেওয়ার বিষয়ে।

হাকিমপুর পৌরসভার মেয়র জামিল হোসেন বলেন, হিলি রেলস্টেশনটি ক্লোজ ডাউন করার বিষয়টি শুনা মাত্র রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক বরাবরসহ বিভিন্ন দপ্তরে পত্র দেওয়া হয়। সেই সাথে আমি তার সাথে কথা বলি উনি হিলি রেলস্টেশনটিকে এইভাবে বন্ধের বিষয়টি উনি জানতেননা সেই সাথে এটি বন্ধের কারনে আমাদের প্রচন্ড ক্ষতি এলাকাবাসীর চরম ভোগান্তির বিষয়টি তাকে অবহিত করি। সেসময় উনি আমাকে জানান অস্থায়ি জনবল দিয়ে স্টেশনটিকে চালু রাখা হয়েছিল সেটি আবারো বাড়ানো যায় কিনা সেটির কথা জানিয়েছিলেন। সে মোতাবেক তাদেরকে আবারো ৬মাসের জন্য মেয়াদ বাড়িয়ে পুনরায় রেলস্টেশনটিকে চালু করেছেন। তবে এখন আমাদের দাবী অস্থায়ী জনবল দিয়ে হিলি রেলস্টেশন পরিচালনা নয় এখানে স্থায়ী জনবল নিয়োগ দিয়ে এটি চালু করতে হবে।

রেলওয়ের জুনিয়র ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আহসান হাবীব বলেন, জনবল সংকটের কারনে গত ২০ অক্টোবর থেকে হিলি রেলস্টেশটিকে ক্লোজ ডাউন করা হয়েছিল। পরে আবারো অস্থায়ী জনবল দিয়ে ২২অক্টোবর থেকে এটি পুনরায় চালু করা হয়েছে। আর স্থায়ী জনবল নিয়োগের একটা প্রক্রিয়া আছে, সেই প্রক্রিয়ার জনবল নিয়োগ শুরু হয়েছে, এটি হলে আমরা ধীরে ধীরে সবকিছু কমপ্লিট করতে পারবো যতক্ষন না পর্যন্ত না হয়েছে এর ব্যাতিক্রম কোনকিছু করা যাচ্ছেনা। সেই সাথে পর্যায়ক্রমে সব স্টেশনের মতো হিলি রেলস্টেশনের আধুনিকায়ন কাজ করা হবে।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ24।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!