ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে মাদরাসা শিক্ষক কারাগারে

সাজ্জাদ হোসেন, মুরাদনগর (কুমিল্লা) ।।

৭৮

প্রাইভেট পড়ানোর নামে শিক্ষার্থী ধর্ষণের অভিযোগে আটক একই মাদরাসার শিক্ষক সাজ্জাত হোসেন সাজুকে (৩৫) শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার পাহাড়পুর ইউনিয়নের সরমাকান্দা গ্রামের ওয়াজ উদ্দিন মাস্টারের ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। বৃহষ্পতিবার রাতে অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে আটক করে পুলিশ। সে খুলনার দৌলতপুর থানার মহেশরপাশা গ্রামের মৃত আলতাফ হোসেনের ছেলে।

পুলিশ ও শিক্ষার্থীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, সরমাকান্দা আদর্শ দাখিল মাদরাসার সহকারী শিক্ষক সাজ্জাত হোসেন সাজুর কাছে আগস্ট মাস থেকে ১০/১২ জনের একটি ব্যাচের সাথে গণিত ও ইংরেজি প্রাইভেট পড়তে যায় ভূক্তভোগি একই মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী (১৪)। কিছুদিন অতিবাহিত হলে শিক্ষক সাজু বিভিন্ন প্রকার কুট-কৌশল অবলম্বন করতে থাকে। সে ওই শিক্ষার্থীকে বলে, তুমি পড়া-শোনায় অনেক পিছিয়ে আছে, এখন থেকে প্রতি শুক্রবার তোমাকে আলাদা পড়াব। সেই সুবাধে প্রাইভেট পড়তে গেলে ওই শিক্ষার্থীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে শিক্ষক সাজু।

সর্বশেষ গত ২১ অক্টোবর শুক্রবার বিকাল আনুমানিক ৩টায় ওই শিক্ষার্থীকে ফোন দিয়ে প্রাইভেট পড়াতে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক আবারো ধর্ষণ করে। নিরূপায় হয়ে সে বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়। বৃহস্পতিবার রাতে বিষয়টি থানায় অবহিত করলে পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষক সাজ্জাত হোসেন সাজুকে ওই গ্রাম থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। শুক্রবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

মুরাদনগর থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, এ ঘটনায় ভূক্তভোগি শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছে। শুক্রবার দুপুরে এ মামলায় অভিযুক্ত সাজ্জাদ হোসেন সাজুকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!