ঝালকাঠিতে ফ্রিল্যান্সারা ঘরে বসে টাকা আয় করছে

কাজী খলিলুর রহমান,ঝালকাঠি প্রতিনিধি।।

১৪৭

ঘরে বসেই অর্পিতা তন্বি, সাইয়েদা সুলতানা, জুথি আক্তারের মত তরুন-তরুনীরা ফ্রিল্যান্সাররা মাসে ৪০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা আয় করছেন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ থেকে লানিং ও আনিং ডেভেলপমেন্ট এর আওতায় এরা ঘরে বসেই অনলাইনে প্রশিক্ষন নিয়ে নিজেদের তৈরি করে অনলাইন মার্কেটপ্রেস থেকে ঘরে বসেই উপার্জন করছে। এর জন্য তাদেরকে নিতে হয়নি কোন বড় বড় ডিগ্রি। সর্বাধিক এইচ.এস.সি থেকে স্নাতক পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষা নিয়েই এরা এই কাজ করছে। এক্ষেত্রেও মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। কেউ কেউ চাকরি ছেড়েও প্রশিক্ষন নিয়ে ফ্রিল্যান্সার হয়েছেন। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে কারো মুখাপেক্ষি না থেকে এরা সাবলম্বী হচ্ছে। আনিং ও লানিং এর ফ্রিল্যান্সার হয়ে স্¦াধীন সত্তা হয়ে আয়ের পথ খুজে নিয়েছে। বাংলাদেশে ৫০ হাজারেরও বেশি ফ্রিল্যান্সার কাজ করছে।

তথ্য যোগাযোগ মন্ত্রনালয় থেকে শেখ রাসেল দিবসে সোমবার সাতজন ফ্রিল্যান্সারকে ল্যাপটপ প্রধান করা হয়েছে। আউটসোসিং প্রশিক্ষনে সফল ফ্রিল্যান্সার অনলাইন মার্কেটপ্রেস থেকে উর্পাজন সংক্রান্ত তথ্য যাচাইকরণ ও সব্বোর্চ উপার্জনকারী প্রশিক্ষনার্থী নির্বাচন করা হয়েছে। এদের মধ্যে ঝালকাঠি জেলার ৭ জনকে সরকারের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক মো: জোহর আলী তাদের হাতে ল্যাপটপ তুলে দেন। এরা হচ্ছে অর্পিতা তন্বীত, মোসা: সাইয়েদা সুলতানা, জুথি আক্তার, মো: সাইফুল ইসলাম, সানজিদা ইসলাম, কানিজ ফাতেমা ও মো আরিফুর রহমান। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মো: কামাল হোসেন ও জেলা তথ্য ও প্রযুক্তি শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারি কমিশনার তাজবিদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন ।
আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ24।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!