নীলফামারীর ডিমলায় বুড়ি তিস্তা নদী খননের জরিপ চলাকালে হামলা ভাংচুর

সুভাষ বিশ্বাস, নীলফামারী।

৬২

দেশীয় অস্ত্র লাঠি সোটা ও হাতে তীর ধনুক নিয়ে বুড়ি তিস্তা নদী খনন ও জরিপ কাজে ব্যবহৃত ঠিকাদারের ভেকু মেশিন ও ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে নদীর জমি দখলে রাখা কতিপয় ব্যক্তিরা।

নদীর জমি দখলদারদের সকলের পরনে ছিল সাদা টি-শার্ট। বিষয়টি পরিকল্পিত বলছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। নীলফামারীর ডিমলায় বুড়ি তিস্তা নদী খননের জরিপ কাজ চলা কালে ঠিকাদারের মাটি কাটা যন্ত্র ভেকু, ঘর ও মোটরসাইকেল পুড়ে দিয়েছে বুড়ি তিস্তা নদীর দখল দারেরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করছে ডিমলা থানা পুলিশ।

শনিবার (১৭ ডিসেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কয়েক দফায় নদীর জরিপ কাজ বাঁধাগ্রস্থ করে পরে ঠিকাদারি যন্ত্রাংশে আগুন ধরিয়ে দেয়। ডিমলা জোড়াপুল এলাকার পাশে বুড়িতিস্তা নদী খননের সীমানা নির্ধারণের সময় এ ঘটনা ঘটে। ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেনের সামনে এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

এই বিষয়ে ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ লাইছুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন আমরা তদন্ত করে দেখছি কারা এই ঘটনার মুল হোতা।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী হান্নান প্রধান জানান, দীর্ঘদিন ধরে এই সিন্ডিকেটটি বুড়ি কিস্তা নদীর খলন কাজ বাধাগ্রস্থ করছে । এদের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলা রয়েছে এরা জামিনে ছাড়া পেয়ে আবারো এই ঘটনা ঘটালো ।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী কৃষ্ণ কমল চন্দ্র সরকার জানিয়েছেন বুড়ি তিস্তা নদীর জমি দখলদারেরা সকলেই সাদা টিশার্ট ও হাতে লাঠি সোঠা নিয়ে একটি ভেকু মেশিন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ঘর একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগ করে আমরা আরো জানতে পেরেছি তাদের বেশ কিছু জনের হাতে তীর ধনুকও ছিল। বিষয়টি পরিকল্পিত তারা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাজে বাধাগ্রস্ত ও হামলা করার জন্য গতকালকে একটি বৈঠক করেছে বলে জানতে পেরেছি ।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!