নীলফামারীর মেয়ে দিয়া ২২ তম আরচারি এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে খেলছে

সুভাষ বিশ্বাস, নীলফামারী।।

কোয়ালিফিকেশন রাউন্ডের মধ্য দিয়ে পর্দা উঠবে ২২ তম এশিয়ান আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২১ এর। সেখানে স্বাগতিক বাংলাদেশ, ভারত, ইরান, ইরাক, জর্ডান, কোরিয়াসহ ১৭ দেশের ১৩১ জন আরচার অংশগ্রহণ করেছেন।

রবিবার (১৪ নভেম্বর/২১) রাজধানারীল আর্মি স্টেডিয়ামে রিকার্ভ পুরুষ দলীয়, রিকার্ভ পুরুষ একক, রিকার্ভ নারী দলীয়, রিকার্ভ নারী একক ও রিকার্ভ মিশ্র দলীয়সহ আট ইভেন্টে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এবারে বাংলাদেশ থেকে অংশ গ্রহণ করেছেন ১৫ আরচার।

এদের মধ্যে রিকার্ভ মহিলা বিভাগে বাংলাদেশ থেকে অংশ নিয়েছেন নীলফামারীর দিয়া সিদ্দিকী। সে নীলফামারী পৌরসভা ৪ নং ওয়ার্ড পাইকার পাড়ার মোঃ নূর আলম সিদ্দিকী ও শাহানাজ বেগম সম্পা দম্পতির দুই ছেলে ও এক মেয়ের বড় মেয়ে। দিয়ার বাবা একজন বেসরকারী টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন।

মেয়ের সাফল্যের বিষয়ে জানতে চাইলে দিয়ার বাবা নূর আলম সিদ্দিকী বলেন, মেয়েকে আদর করে ‘বাবা’ বলে ডাকতাম। তিন ভাইবোনের মধ্যে বড় বলে ছোটবেলা থেকেই একটু বাড়তি আদর পেয়ে এসেছে।দিয়া আর্চারিতে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছে যা গোটা দেশের জন্য গর্ব।

তিনি আরও বলেন, নীলফামারী বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময় শরীরচর্চা শিক্ষক খাইরুল ইসলাম দিয়ার উচ্চতা (৫ ফুট ৪ ইঞ্চি) দেখে তাঁকে নিয়ে আসেন আর্চারির প্রতিভা অন্বেষণের ক্যাম্পে। পরবর্তীতে বিকেএসপিতে ভর্তি হয়ে কঠোর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে। বর্তমানে ঐ প্রতিষ্ঠানের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী দিয়া। ২০১৯ সালে ইসলামিক সলিডারিটি আর্চারী আন্তর্জাতিক আসরে দিয়া সিদ্দিকী প্রথম স্বর্ণ জয় করেন। সেই থেকে শুরু হলো দিয়ার সাফল্যের সিঁড়িতে পা রাখা।

দিয়া বলেন, ‘বাবা আমাকে সমর্থন না দিলে হয়তো আর্চারি খেলাই হতো না।’ পড়াশোনার পাশাপাশি খেলা-ধুলার প্রতি আমার অন্য রকম টান ছিলো। তাই পিতা-মাতা, স্কুল শিক্ষক সহ আমার বিকেএসপির শিক্ষকদের অনুপ্রেরণায় ও সহযোগীতায় আমি আজকের দিয়া সিদ্দিকী।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ24।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!