পঞ্চগড়ে জাপা নেতা ও ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় রিমান্ড শেষে হাজতে স্ত্রী-সন্তান

পঞ্চগড় প্রতিনিধি।।

পঞ্চগড়ে জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও পাথর ব্যবসায়ী গোলাম আযমকে (৫৩) হত্যার ঘটনায় স্ত্রী বন্যা আক্তার (৪৭) ও ছোট ছেলে বাঁধনকে (২১) গ্রেফতারের পর একদিনের রিমান্ড শেষে হাজতে প্রেরণ করেছে পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ। বুধবার (৯ মার্চ) বিকেলে তাদের রিমান্ড শেষে জেল জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পঞ্চগড় সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ভবেশ চন্দ্র পাল রাত ৮টায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

পুলিশ জানায়, গোলাম আযম হত্যার ঘটনায় মঙ্গলবার (৮ মার্চ) পঞ্চগড় চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্ত্রী ও সন্তানকে তোলা হলে পুলিশ আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। পরে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ুন কবির সরকার ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। একদিনের রিমান্ডে তাদের অনেক কিছু জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। রিমান্ড শেষে বিকেলে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। আমরা এ ঘটনায় অপরাধীকে ধরতে এবং ঘটনার রহস্য জানতে গভীরে গিয়ে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করছি। আশা করি দ্রুত রহস্য উদ্ঘাটন হবে।

এর আগে গত শনিবার (৫ মার্চ) রাতে পঞ্চগড় সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের ঘাটিয়ার পাড়ার নিজ বাড়ির শয়ন কক্ষে তার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

ব্যবসায়ী গোলাম আযমকে মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। গোলাম আযজমের স্ত্রী বন্যা আক্তার, ছোট ছেলে বাঁধন এবং ছোট এক মেয়েকে নিয়ে বাড়িতে বসবাস করতেন। বড় ছেলে লিমন লেখাপড়ার জন্য ময়মনসিংহে থাকেন। ঘটনা শোনার পর বড় ছেলে বাড়িতে আসেন। এবং বাবার হত্যাকারীকে ধরতে রোববার (৬ মার্চ) গভীর রাতে নিহতের বড় ছেলে বদিউজ্জামান লিমন বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে গত সোমবার (৭ মার্চ) রাতে নিজ বাড়ি থেকে ব্যবসাহিক গোলাম আযমের স্ত্রী-সন্তানকে গ্রেফতার করা হয়।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!